১৮ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদ্যুত ও ইপিজেড খাতে অর্থায়নে আগ্রহ জাইকার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) কাছে আরও ঋণ সহায়তা চেয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। আর জাইকা দেশের বিদ্যুত ও অর্থনৈতিক অঞ্চলে অর্থায়ন করতে আগ্রহ দেখিয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী। সোমবার বিকেলে জাইকার প্রতিনিধি হিতোশি হিরাতার নেতৃত্বে তিন সদস্যের এক প্রতিনিধি দল পরিকল্পনামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে জাইকার কাছে আরও ঋণ চাওয়ার বিষয়টি জানান মন্ত্রী।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, জাইকার প্রতিনিধি দল আসছিল। এই ভদ্রলোক প্রায় সাড়ে তিন বছর হলো বাংলাদেশে আছেন। সার্বিকভাবে তিনি সন্তুষ্ট কাজে। আমরা বলেছি, আপনারা আমাদের খুব পুরনো বন্ধু। আমরা আপনাদের সঙ্গে সম্পর্ক আরও গভীর করতে চাই। তিনি বলেন, কোন পেমেন্টে আমাদের ল্যাপস হয় নেই। আমি বলছি, আগামীতেও হবে না। সার্বিকভাবে তারা খুশি। জানা গেছে, মাতারবাড়ি ১২০০ মেগাওয়াট আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুতকেন্দ্রের মোট ব্যয় ৩৬ হাজার কোটি টাকা। জাইকা এ প্রকল্পে ২৯ হাজার কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে। সামনে নতুন নতুন বিদ্যুতকেন্দ্র নির্মাণসহ অর্থনৈতিক অঞ্চলে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে আরও ঋণ দিতে চায় সংস্থাটি। এম এ মান্নান জানান, এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোন ও বিদ্যুতে তাদের আগ্রহ বেশি। আমরা যত ঋণ নেব জাইকা তত দেবে, আমাদের ঋণ দিতে জাইকা সবসময় ইতিবাচক থাকে। মন্ত্রী বলেন, জাইকার কাছে রেল ও সড়কে ঋণ চেয়েছিলাম কিন্তু কোন আগ্রহ দেখায়নি। তাদের আগ্রহ বিদ্যুত ও অর্থনৈতিক অঞ্চলে। জাইকা আমাদের ভাল বন্ধু। দেশের উন্নয়নে জাইকা সব সময় আমাদের পাশে থাকবে। জাইকা প্রসঙ্গে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ৪০টি উন্নয়ন প্রকল্পে জাইকা আমাদের ঋণ দিয়েছে। সামনে নতুন নতুন প্রকল্পে ঋণ দেবে। তবে প্রকল্প বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আমাদের সচেতন হতে হবে। মানুষের কল্যাণে আমাদের প্রকল্প নিতে হবে। প্রকল্প প্রণয়নে অনেক দেরি হয়। এই সমস্যা যেন না থাকে এটা থেকে বের হতে বলেছে জাইকা।

নির্বাচিত সংবাদ