১৯ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সেচ পাম্পের বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন ॥ লালমনিরহাটে ধানের জমি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে

সেচ পাম্পের বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন ॥ লালমনিরহাটে ধানের জমি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে

নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট ॥ লালমনিরহাট জেলা সদরের তালুক হারাটি গ্রামে সেচ পাম্পের সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় ৪ একর বোরো ফসলের জমি শুকিয়ে লাল হয়ে গেছে। মরে পচে গেছে চারাধানের গুচ্ছ। কৃষক পড়েছে বিপাকে।

জানা গেছে, জেলা সদরের হারাটি ইউনিয়নের তালুক হারাটি গ্রামের কৃষক ইসমাইল হোসেন(৪৫) ও মোঃ জিয়ার রহমান(৫৫) বোরো চাষের জন্য বাড়িতে একটি সেচ পাম্পের সংযোগ নেয়। সংযোগের প্রতিমাসের বিল নিয়মিত পরিশোধ করে আসছে। নেসকো লিঃ লালমনিরহাট অফিসের উপসহকারি প্রকৌশলী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ও লাইনম্যান কাইয়ুম হোসেন জয় কয়েক দিন পূর্বে সেচপাম্পের ও বাড়ির বিদ্যুত সংযোগের মিটার খুলে নিয়ে আসে। মামলা করার কথা বলে দেড় লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। সেই সাথে বাড়ি ও সেচপাম্পের মিটার দুইটি লাগিয়ে দেয়। গত ৫ ফেব্র“য়ারি পুনরায় ওই দুই কর্মকর্তা বাড়িতে গিয়ে মিটার দুইটি খুলে দেখে ও পুনরায় মামলা করার ভয় দেখায়। এই বিষয়ে গত ১১ ফেব্র“য়ারি নেসকো লিঃ, লালমনিরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবর অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে গত ৭ ফেব্র“য়ারি রাতে রহস্যজনক ভাবে বাড়ির পিছনের ওয়াল হতে মিটার দুইটি চুরি যায়। এ ব্যাপারে লালমনিরহাট সদর থানায় জিডি দায়ের করা হয়েছে। ৫দিন ধরে পাম্পের সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকায় ৪ একর বোরো জমিতে পানি সেচ বন্ধ রয়েছে। এতে করে জমির ধান পানি শূন্য হয়ে লালচে রং ধারন করে চারা ধানের গুচ্ছ পঁচে গেছে। কৃষক বিদ্যুত লাইনের পুনরায় সংযোগ নিতে অফিসে যোগাযোগ করলে জানতে পারে তাদের নামে থানায় মিটার চুরির মামলা দায়ের করেছে নেসকো কতৃপক্ষ। এই মামলার তদন্ত রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত পুনরায় বিদ্যুত সংযোগ দেয়া সম্ভব নয় বলে জানান। সেচ পাম্পের বিদ্যুত সংযোগ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ফরে ৪ একর ফসলের ক্ষেত নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে নেসকো লিঃ , লালমনিরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী পলাশ চন্দ্র রায় জানান, মিটার চুরির তদন্ত রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত সংযোগ দেয়া যাবে না। বিদ্যুত বিভাগের দুই কর্মচারীর দুর্নীতি সর্ম্পকে অভিযোগ পেযেছেন বলে স্বীকার করেন তিনি।

নির্বাচিত সংবাদ