১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভনের অভিমান!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আমেরিকার সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় লিন্ডসে ভন। হঠাৎ করেই অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে এক বার্তায় নিজের অবসরের ঘোষণা দেন ৩৪ বছরের আইস স্কিয়ার। সেখানে তিনি লিখেছেন, তার শরীরের অবস্থা এখন এমন যা আর ঠিক হওয়া সম্ভব নয়। সুতরাং তাকে থেমে যেতে হচ্ছে।

শীতকালীন অলিম্পিকে তিনবার পদক জিতেছেন লিন্ডসে ভন। ২০১০ সালে ভ্যাঙ্কুভারে শীতকালীন অলিম্পিকেও সোনা জেতেন তিনি। বিশ্বকাপেও রয়েছে তার একাধিক কীর্তি। আইস স্কিয়িংয়ে অসাধারণ সব পারফর্মেন্স উপহার দিয়ে নিজেকে নিয়ে গেছেন কিংবদন্তিদের দলে। কিন্তু ঝুঁকিপূর্ণ এই খেলায় একের পর এক মাইলফলক স্পর্শ করতে গিয়ে মারাত্মক সব চোট পেয়েছেন তিনি। এমনকি একাধিকবার প্রাণসংশয়ের সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছিল তার। গত বছরে তার একটি অস্ত্রোপচার হয়েছে। এরপর আর না ফেরারই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লিন্ডসে ভন।

এসব ব্যাপার মাথায় নিয়েই অবসরের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তবে অবসরের সিদ্ধান্তটা মোটেও সহজ ছিল না তার। এ প্রসঙ্গে লিন্ডসে ভন বলেন, ‘বহু ঘুমহীন রাত কাটিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি যে, আমি আর খেলতে পারব না। সামনের সপ্তাহে বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপ হচ্ছে সুইডেনে। সেখানে ডাউনহিলে সুপার জি বিভাগে অংশ নেব। এটাই হবে আমার ক্যারিয়ারের শেষ প্রতিযোগিতা।’ লিন্ডসে ভন এ সময় আরও বলেন, ‘গত কয়েকটা সপ্তাহ আমার ক্যারিয়ারের সব থেকে আবেগপূর্ণ মুহূর্ত ছিল। মন বলছে মিটে আমি আরও অংশ নিতে পারি। কিন্তু শরীর বলছে এখানেই থামা উচিত। সবচেয়ে কষ্টকর, আমার মন এবং আমার শরীর এক কথা বলছে না। যে কারণেই কঠিন একটা সিদ্ধান্ত নিতেই হলো আমাকে।’

এখানেই থামেননি আমেরিকার এই তারকা খেলোয়াড়। তিনি বলেন, ‘স্কিয়িংকে আমি ভিন্ন স্তরে নিয়ে যেতে চেষ্টা করেছিলাম। অসাধারণ কিছু সাফল্য পেয়েছি। আবার সেটা করতে গিয়ে মারাত্মক আঘাতও পেয়েছি। আমি আমার জীবন নিয়ে গল্প চাই না। তাই গত বছরে আমার যে অস্ত্রোপচার হয়েছে সেটা কাউকে বলিওনি। এরপরও আমি আরও একবার প্রতিযোগিতায় নামতে চেয়েছি। কারণ আমি আমার সদ্য প্রয়াত দাদুর জন্য আরও একটা পদক জিততে চেয়েছি।’

শুধু স্কিয়িংয়েই নয়, প্রেমিক হিসেবেও আলোচিত লিন্ডসে ভন। এই গল্পটাও নিশ্চিত অনেকের জানা। একটা সময় গলফ সম্রাট টাইগার উডসের প্রেমের জোয়ারেও যে ভেসেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই গতিও থেমে যায় একটা সময়। দীর্ঘ তিন বছর দারুণ রোমাঞ্চ ছড়ালেও ২০১৫ সালে বেঁকে যায় তাদের পথ। তবে উডস এবং তার মধ্যে বোঝাপড়ার মাধ্যমেই সেই সম্পর্কের ইতি ঘটে। লিন্ডসে ভন জানিয়েছিলেন, তাদের দু’জনের জীবনের ব্যস্ততাই মূলত এরজন্য দায়ী। কেননা ব্যস্ততম জীবনে দু’জনকেই বেশিরভাগ সময় আলাদা থাকতে হয়। সে কারণেই এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিতে হয়। তবে টাইগারের প্রতি শ্রদ্ধা এতটুকুও কমেনি বলে সেবার জানিয়েছিলেন লিন্ডসে ভন। তিনি বলেছিলেন, তার হৃদয়ে উডস ও তার পরিবার একটা বিশেষ জায়গা নিয়ে থাকবে সবসময়।