১৯ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভারত সরকার বিচ্ছিন্নতাবাদীদের কড়া বার্তা দিল

ভারত সরকার বিচ্ছিন্নতাবাদীদের কড়া বার্তা দিল

অনলাইন ডেস্ক ॥ পুলওয়ামা হামলারদু’দিন আগেই শ্রীনগরে গিয়ে বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের বিরুদ্ধে কড়া বার্তা দিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। আর আজ রবিবারই জারি হল নির্দেশিকা। পুলওয়ামায় জঙ্গী হানার জেরে পাঁচ বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতার নিরাপত্তা প্রত্যাহার করে নিল জম্মু-কাশ্মীর সরকার। তালিকায় এখনও পর্যন্ত অবশ্য পাকিস্তানপন্থী নেতা সৈয়দ আলি শাহ গিলানির নাম নেই। তবে এই বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের আর কে কে কী ধরনের নিরাপত্তা এবং অন্যান্য সুবিধা পান, তা খতিয়ে দেখছে প্রশাসন। ফলে তালিকায় আরও অনেকেই যুক্ত হতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। নিরাপত্তা তুলে নিয়ে সরকার বিচ্ছিন্নতাবাদীদের কড়া বার্তা দিল বলে মনে করা হচ্ছে।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, আজ রবিবার সন্ধ্যা থেকেই পাঁচ বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতার জন্য বরাদ্দ নিরাপত্তা ব্যবস্থা পুরোপুরি তুলে নেওয়া হবে। তাঁদের নিরাপত্তার জন্য বরাদ্দ গাড়িও নিয়ে নেওয়া হবে। ওই নির্দেশে আরও কড়া বার্তা দিয়ে বলা হয়েছে, কোনও পরিস্থিতিতেই তাঁদের বা অন্য কোনও বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাকে আর কোনও নিরাপত্তা দেওয়া হবে না।

নিরাপত্তা তুলে নেওয়া পাঁচ বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাদের মধ্যে অন্যতম, মিরওয়াইজ উমর ফারুক। এছাড়াও তালিকায় রয়েছেন আবদুল গনি ভাট, বিলাল লোন, হাসিম কুরেশি এবং সাবির শাহ। কিন্তু তালিকাটা যে এখানেই শেষ নয়, তার ইঙ্গিত মিলেছে ওই নির্দেশিকাতেই। বলা হয়েছে, আরও কোনও বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা এই ধরনের নিরাপত্তা পান কিনা, পুলিশ তা খতিয়ে দেখছে। সেরকম কেউ থাকলে, তাদের নিরাপত্তাও সঙ্গে সঙ্গে তুলে নেওয়া হবে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে জঙ্গী হানায় এখনও পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৪৯। এই হামলার পরের দিনই জম্মুতে পরিদর্শনে যান রাজনাথ সিংহ। সেখানে তিনি বলেন, জম্মু কাশ্মীরে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, ‘‘যাদের পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এবং পাকিস্তানি জঙ্গীদের সঙ্গে যোগ রয়েছে। তাদের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখা হবে।’’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা