২০ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাল্য বিয়ের অপরাধে কেশবপুরে বর-কনেসহ ৪ জনের কারাদন্ড

বাল্য বিয়ের অপরাধে কেশবপুরে বর-কনেসহ ৪ জনের কারাদন্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা, কেশবপুর ॥ রবিবার দুপুরে কেশবপুরে ২টি বাল্য বিয়ের অপরাধে বর, দুজন কন্যা ও এক কন্যার পিতাকে ভ্রাম্যমান আদালত কারাদন্ড প্রদান করেছে। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মিজানূর রহমান ও উপজেলা সহকারী কমিশনার এনামুল হক পৃথক পৃথক ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাদের কারাদন্ড প্রদান করেন।

উপজেলার শ্রীফলা গ্রামের লিয়াকত আলী সরদার তার মেয়ে শ্রীফলা দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী শারমিন খাতুনের (১৫) বিয়ের আয়োজন করেন। খবর পেয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানূর রহমান পুলিশসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। বিয়ে বাড়িতেই ভ্রাম্যমান আদলত বসিয়ে কনের পিতা লিয়াকত আলী সরদারকে ৬ মাস কারাদন্ড প্রদান করেন। এসময় কন্যা শারমিন খাতুনকে ১ মাসের আটকাদেশ দিয়ে যশোর ভেকুটিয়া শেল্টার হোমে পাঠানোর নির্দেশ প্রদান করেন।

এছাড়া উপজেলার বাগদাহ গ্রামের ফিরোজ আলমের ছেলে সৈকত হোসেন মিহিন (২১) শনিবার রাতে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বিশহরি গ্রামের আমিন উদ্দিনের মেয়ে ও বিশহরি দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্রী ইয়াসমিন খাতুনকে বিয়ে করে বাড়ি নিয়ে আসে। রবিবার সকালে খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এনামুল হক পুলিশসহ বাগদাহ গ্রামে উপস্থিত হয়ে অপর ভ্রাম্যমান আদলত বসিয়ে বাল্য বিয়ের অপরাধে বর সৈকত হোসেন মিহিনকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড ও কনে ইয়াসমিন খাতুনকে ১ মাসের আটকাদেশ দিয়ে যশোর ভেকুটিয়া শেল্টার হোমে পাঠিয়েছেন। কেশবপুর থানার ওসি মোঃ শাহীন বলেন, দন্ডপ্রাপ্তদের যশোর কারাগারে ও আটকাদেশ প্রাপ্তদের ভেকুটিয়া শেল্টার হোমে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।