১৯ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মাদক সেবনের টাকা চাওয়ায় বিরক্ত হয়ে বয়ফ্রেন্ডকে কুপিয়ে হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বঁটি দিয়ে কুপিয়ে নটরডেম কলেজের ডিগ্রী দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইয়োগেন গঞ্জালভেজকে (২২) কুপিয়ে হত্যা করে তার গার্ল ফ্রেন্ড সখিনা বেগম সবিতা (২৬)। রবিবার মধ্যরাতে রাজধানী মুগদা এলাকা থেকে সবিতা গ্রেফতার হওয়ার পর র‌্যাবের কাছে চাঞ্চল্যকর এই তথ্য দেয়। রবিবার বিকেলে রাজধানীর কাওরানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল এমরানুল হাসান এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার সবিতা জানায়, দীর্ঘদিনের জমানো ক্ষোভ ও ইয়োগোনের মাদক সেবনের জন্য টাকা চেয়ে দফায় দফায় বিরক্ত হয়ে খুনের এই পরিকল্পনা করে। এজন্য সাড়ে ৬ শ’ টাকা দিয়ে বঁটি কেনে। এরপরই সবিতা মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) সবুজবাগের কদমতলীর ৯ নম্বর রোডের হিরাঝিল এলাকার ৭৭/এ নম্বর বাসায় কৌশলে ইয়োগোনকে জুসের সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে অচেতন করে। পরে ইয়োগোনের হাত-পা বেঁধে বঁটি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে সবিতা। ওই বাসায় একসঙ্গে ভাড়া নিয়ে থাকার কথা ছিল তাদের। র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক (সিও) লেফটেন্যান্ট কর্নেল এমরানুল হাসান জানান, সবিতা নিহতের গার্লফ্রেন্ড। একসঙ্গে একটি প্রতিষ্ঠানের কল সেন্টারে কাজ করতেন। উক্ত বাসা থেকে ইয়োগোনের লাশ উদ্ধারের পর তদন্ত শুরু হয়। এ সময় র‌্যাবের টিম ওই বাসার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ওইদিনের ইয়োগেন এবং সবিতার বাসায় প্রবেশের ফুটেজ পাওয়া যায়। বাসায় প্রবেশের পর ইয়োগনের পিপাসা পাওয়ায় জুস কিনতে বাইরে যায়। এই ফাঁকে সবিতা প্রাণের লাচ্ছি জুসের সঙ্গে চেতনা নাশক ওষুধ মিশায়। অতপর ইয়োগেন জুস কিনে বাসায় ফিরে আসার পর একটি প্লাস্টিকের ওয়ানটাইম গ্লাসে করে লাচ্ছি খেতে দেয়। উক্ত দৃশ্যগুলো ইয়োগেনের মোবাইলে রেকর্ড করে। অতপর ইয়োগেনের মোবাইল হতে ইউটিউব চ্যানেলে ৪টি ভিডিও আপলোড করে উক্ত ভিডিওগুলো মোবাইল হতে ডিলিট করে দেয়। অতপর ইয়োগেন অচেতন হলে তার হাত পা মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে ফেলে। তারপর বঁটি দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। কোপানোর একপর্যায়ে ইয়োগেন চিত অবস্থা হতে উল্টিয়ে যায়। তখন সবিতা তার পিঠের ওপর এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। অতপর স্যালোয়ার কামিজ ও ওড়না পরে খালি পায়ে বাসা থেকে বের হয়ে যায়। বাসা থেকে বের হয়ে সে একটি রিক্সা ভাড়া করে। এরপর সবিতা সবুজবাগ বালুর মাঠ, তিলপাপাড়া এলাকা দিয়ে রিক্সাযোগে নয়াটোলা মগবাজার এলাকায় তার বান্ধবীর বাসায় যায়। এরপর তিলপাপাড়া এলাকায় যাওয়ার পর সে তার মোবাইল ফোন চালু করে। রিক্সাওয়ালাকে ২শ’ টাকা ভাড়া দেয়। এই সিসি ক্যামেরায় এই ফুটেজ পাওয়ার পরই অভিযান চালানো হয়। ২০১৩ সালে ইয়োগোনের সঙ্গে সবিতার পরিচয় হয়। ২০১৭ সালের দিকে ইয়োগোন নটরডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যয়নকালীন তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ বাড়ে।

উল্লেখ্য, গত ১২ ফেব্রুয়ারি সবুজবাগের একটি বাসা থেকে ইয়োগেন গঞ্জালভেজ (২২) নামে নটরডেম কলেজের ডিগ্রী দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ইয়োগেন চট্টগ্রাম কোতোয়ালি থানার পাথরঘাটা এলাকার ম্যাকলিন গঞ্জালভেজের ছেলে। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা হয়েছে।