২৫ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টেস্টে হোয়াইটওয়াশ ইংলিশ যুবারা

  • মাহমুদুলের শতকে ৩ উইকেটের রেকর্ড জয় স্বাগতিক বাংলাদেশ যুবাদের

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ লক্ষ্যটা সহজ ছিল না, কিন্তু নিজেদের টার্গেট অটুট রেখেছিল বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ ক্রিকেট দল। মাহমুদুল হাসান জয় খেললেন ১১৪ রানের ম্যাচজয়ী দুর্দান্ত ইনিংস। আর সে কারণেই চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ যুব টেস্টে সফরকারী ইংল্যান্ড অনুর্ধ ১৯ ক্রিকেট দলকে ৩ উইকেটে হারিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশের যুবারা। ৩০৪ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে তৃতীয় দিনশেষে ১ উইকেটে ৩৪ রান তুলেছিল স্বাগতিকরা। শেষদিনে প্রয়োজন ছিল ২৯৯ রানের। সেটি সম্ভব হয়েছে মাহমুদুল ও তৌহিদ হৃদয়ের চতুর্থ উইকেটে ১৪২ রানের বিশাল জুটির কল্যাণে। এর ফলে প্রথমবার কোন দলকে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করল বাংলাদেশ অনুর্ধ ১৯ দল। এটি যুব টেস্টের ইতিহাসে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড। উল্লেখ্য, পুরো সফরেই হোয়াইটওয়াশ হয়েছে ইংলিশরা। একমাত্র টি২০ ম্যাচ হেরে তারা ওয়ানডে সিরিজেও ৩-০ ব্যবধানে ধবল ধোলাইয়ের শিকার হয়েছিল।

এর আগে মাত্র তিন টেস্ট জিতেছিল বাংলাদেশের যুবারা। যারা মধ্যে সাগরিকাতেই গত টেস্টে ইংলিশদের পর্যুদস্তু করে তাদের বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছিল। তবে এবার জিততে পারলে অন্যরকম কিছু রেকর্ডই হতো। এত বড় টার্গেট তাড়া করে জিততে পারেনি আগে বাংলাদেশ দল এবং এর আগে দুই ম্যাচ বা তার বেশি টেস্টের সিরিজ জেতেনি। সেজন্য ৩৩৩ রানের বিশাল লক্ষ্য ছুঁতে হতো বাংলাদেশকে। সেই লক্ষ্যে নেমে তৃতীয় দিন শেষে ১ উইকেটে ৩৪ রান তোলার পর সোমবার শেষদিন বাংলাদেশ যুবাদের প্রয়োজন ছিল আরও ২৯৯ রানের। ওপেনার তানজিদ হাসান ৫১ বলে ৬ চারে ৫১ রানের দ্রুতগতির ইনিংস খেলে বিদায় নেন। এরপরই সাজঘরে ফেরেন পারভেজ হোসেন ইমন (৮১ বলে ৩৭)। তবে ইমনের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে ৫৪ রান যোগ করেছিলেন মাহমুদুল। তিনি এরপর উপযুক্ত সঙ্গী হিসেবে পেয়ে যান তৌহিদকে। যার সঙ্গে ১৪২ রানের বিশাল এক জুটি গড়েন মাহমুদুল। অর্ধশতক হাঁকিয়ে দারুণ খেলতে থাকা তৌহিদ অবশ্য ১৪৫ বলে ৬ চার, ১ ছক্কায় ৭৬ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। তখনও জয় থেকে ৭০ রান দূরে বাংলাদেশ।

সেটাকে সহজ করেছেন মাহমুদুল। সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। অধিনায়ক আকবর আলী (৫) দ্রুত বিদায় নিলেও ষষ্ঠ উইকেটে শাহাদাত হোসেনের সঙ্গে মহাগুরুত্বপূর্ণ যে ৪৪ রান যোগ করেছেন তাতেই জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে বাংলাদেশ। মাহমুদুল ২২৪ বলে ১৩ চারে ১১৪ রান করে যখন আউট হন ততক্ষণে তিনি ক্রিজে কাটিয়েছিলেন ৩০৭ মিনিট। জয় থেকে তখন মাত্র ৭ রান দূরে দল। শাহাদাতও ২৫ বলে ২০ রান করে সাজঘরে ফিরেছেন দলকে অবিস্মরণীয় বিজয় থেকে ৩ রান দূরে রেখে। তবে এতে জয় পেতে কোন সমস্যাই হয়নি, ৭ উইকেটে ৩৩৩ রান তুলে জয় ছিনিয়ে নেয় বাংলাদেশের যুবারা। এর আগে সর্বোচ্চ ৪০৪ রান তাড়া করে জিতেছিল ইংলিশ যুবারা। সেটিই এখন পর্যন্ত রেকর্ড। অস্ট্রেলিয়ার যুবাদের হারিয়েছিল তারা। দ্বিতীয় সর্বাধিক ৩৪২ রান তাড়া করে ইংলিশদের ৩ উইকেটে হারিয়েছিল পাকিস্তান অনুর্ধ ১৯ দল। এরপরই যুব টেস্ট ইতিহাসে তৃতীয় সেরা রান তাড়া করার রেকর্ড গড়ল বাংলাদেশ।