১৯ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সঙ্গীত প্রতিভা সায়েরা রেজা

সঙ্গীত প্রতিভা সায়েরা রেজা

সাজু আহমেদ ॥ প্রতিভাময়ী নন্দিত সঙ্গীত শিল্পী সায়েরা সুলতানা রেজা। প্রবাসী এই শিল্পী সঙ্গীত জগতে সায়েরা রেজা নামেই পরিচিতি। বিগত ২৫ বছর ধরে তিনি সঙ্গীত সাধনা করে যাচ্ছেন। বৈচিত্র্যময় কণ্ঠের অধিকারী এই শিল্পী তার সুরেলা গায়কীর জন্য দেশে-বিদেশে নন্দিত হয়েছেন। স্টেজ প্রোগ্রাম, টিভি চ্যানেলের পাশাপাশি নিয়মিতভাবে এ্যালবামের জন্য গান করেন তিনি। শিল্পী জীবনের ক্যারিয়ারে সায়েরা রেজার তিনটি একক এ্যালবাম রয়েছে। এর মধ্যে অগ্নিবীণার ব্যানারে ‘সুখের অমিল’, লেজারভিশনের ব্যানারে ‘এক নিশিথে’ এবং গানচিলের ব্যানারে ‘আরবান ফোক’ অন্যতম। ‘কমনজেন্ডার’ চলচ্চিত্রে তার গাওয়া ‘ওরে সোনা’ গানটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। ইউটিউবসহ সোস্যাল মিডিয়ায় সায়েরা রেজার গানের ভিউয়ার্স কয়েক কোটি। তার গাওয়া জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে ‘ধার ধারিনা’, ‘হলুদিয়া পাখি’, ‘ওরে সোনা’, ‘বাড়ির কাছে আরশীনগর’, ‘মান ভাঙ্গাবো বন্ধুরে আজ’, ‘তুই যদি আমার হইতি রে’, ‘না না না তা হবে না’, ‘এক নিশিথে’, ‘দে দে পাল তুলে দে মাঝি হেলা করিস না’ এবং ‘মনে করি আসাম যাব, আসাম গেলে তোমায় পাব’ প্রভৃতি ইত্যাদি।

সঙ্গীত ক্যারিয়ার শুরু ১০ বছর বয়স থেকেই। গানে হাতেখড়ি কিংবদন্তি শিল্পী নীনা হামিদ, পিলু মমতাজ এবং ওস্তাদ সমীর চক্রবর্তীর কাছে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা আব্বাসউদ্দিন একাডেমি ও দিনা লায়লা মিউজিক একাডেমি থেকে। রপ্ত করেছেন উচ্চাঙ্গ, লালন, রবীন্দ্র, আধুনিক, ফোক, সুফী, পপসহ সঙ্গীতের নানা শাখা। বাংলাদেশ বেতার, বিটিভির তালিকাভুক্ত শিল্পী ছাড়াও চলচ্চিত্রেও নিয়মিত প্লেব্যাক করে থাকেন তিনি। তার কণ্ঠে রয়েছে অন্যরকম মাদকতা। তার এই অসাধারণ সুরেলা কণ্ঠ দিয়েই জয় করেছেন কোটি কোটি মানুষের হৃদয়। দীর্ঘ প্রবাস জীবনের চাকচিক্যে থেকেও বাংলার মা, মাটি মানুষকে ভুলে যাননি। নিয়ত নিয়োজিত রয়েছেন বাংলা গানের মূল শেকড় নিয়ে। আমেরিকায় নিজ ফ্ল্যাটের গ্রাউন্ড ফ্লোরে রয়েছে তার হোম থিয়েটার স্টুডিও। যেখানে গানের আসর বসে মাঝে মধ্যেই। সেখানে আমন্ত্রিত হন নানা শ্রেণীর নামী-দামী মানুষ। এক উন্মাতালে আবহে তিনি গেয়ে চলেন তার হৃদয় নিংড়ানো সব গান। তার আবেগী গান শুনে মাঝে মধ্যে চোখের জল ফেলেন অনেকেই। আমেরিকার বাঙালী কমিউনিটিতে তিনি অনেক আগেই সবার প্রিয় একজন হয়ে উঠেছেন। আমেরিকাবাসীর কাছেও একজন পছন্দের শিল্পী তিনি। লন্ডন, বার্মিংহাম, সুইডেন, ব্রিটেন, প্যারিস, ব্রাসেলস, ব্যাঙ্কক, ফ্লোরিডা, নিউইয়র্ক, নিউজার্সিসহ যেখানেই তিনি স্টেজ পারফর্ম করেছেন সেখানেই প্রিয় একজন হয়ে উঠেছেন। ভক্তরা প্রশংসার তীব্র তীর ছুড়েছেন সায়েরা রেজার প্রতি। তারা তাকে তুলনা করেছেন ফ্রান্সের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী প্রয়াত এডিথ পিয়াফের সঙ্গে। তার মতোই গানকে ধ্যান-জ্ঞান করে সঙ্গীতের সঙ্গে মিশে আছেন তিনি। সায়েরা রেজার একমাত্র স্বপ্ন বাংলা গানকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা। কারণ, তিনি মনে করেন বাংলার মতো এত শিকড় সন্ধানী গান পৃথিবীর খুব কম দেশেই আছে।

এদিকে প্রতি শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় প্রচার হচ্ছে বৈশাখী টেলিভিশনের নতুন মিউজিক্যাল শো ‘মিউজিক ট্রেন’। অনুষ্ঠানে প্রথম পর্ব ১৫ ফেব্রুয়ারি রাত ৯-৩০ মিনিট প্রচার হয়। বৃষ্টি ইসলামের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করেছেন শাহ্ আলম। প্রথম পর্বে অন্য শিল্পীর সঙ্গে দেখানো হয় আমেরিকার নিউইয়র্ক প্রবাসী জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সায়েরা রেজার গান ‘দে দে পাল তুলে দে মাঝি হেলা করিস না’। অনুষ্ঠানের তৃতীয় পর্ব আগামী ১ মার্চ একই সময়ে প্রচার হবে তার ‘মনে করি আসাম যাব, আসাম গেলে তোমায় পাব’ গানটি।