১৯ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলা উচিত নয় ভারতের ॥ হরভজন

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলা উচিত নয় ভারতের ॥ হরভজন

অনলাইন ডেস্ক ॥ পুলওয়ামার জঙ্গী হামলার ঘটনা ছাপ ফেলতে শুরু করেছে ভারত-পাকিস্তান ক্রিকেট সম্পর্কে। আগের দিন ক্রিকেট ক্লাব অফ ইন্ডিয়ার (সিসিআই) সচিব দাবি তুলেছিলেন, বিশ্বকাপে বাতিল করা হোক ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। এ বার সেই দাবিতে গলা মেলালেন স্বয়ং হরভজন সিংহ।

সোমবার রাতে এক টিভি চ্যানেলে বিস্ফোরক হরভজন বলেন, ‘‘বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে একদমই খেলা উচিত নয় ভারতের। ভারতীয় দলের যা শক্তি, তাতে পাকিস্তানের সঙ্গে একটা ম্যাচ না-খেলেও আমরা বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হতে পারি।’’ হরভজনের বক্তব্যের অর্থ হল, পাকিস্তানকে ওই ম্যাচে ওয়াকওভার দিয়ে দিক ভারত। তাতে তিন পয়েন্ট গেলেও ক্ষতি নেই।

হরভজন আরও বলেন, ‘‘কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি আমরা। যা ঘটছে, তা অন্যায় এবং অবিশ্বাস্য। সরকার নিশ্চয়ই কোনও কড়া ব্যবস্থা নেবে। ক্রিকেটের ক্ষেত্রে বলতে পারি, পাকিস্তানের সঙ্গে কোনও রকম সম্পর্ক রাখারই আর প্রয়োজন নেই।’’ ভারতের অফস্পিনার এখানেই থামেননি। বলেন, ‘‘সবার আগে দেশ। আমাদের সৈন্যরা বারবার মারা যাচ্ছেন। শুধু ক্রিকেট কেন, কোনও খেলাই খেলা উচিত নয় পাকিস্তানের সঙ্গে।’’

এ ছাড়াও পাকিস্তানের সঙ্গে সব রকম সম্পর্কচ্ছেদ করার দাবি জানিয়েছেন হরভজন। তিনি পরিষ্কার বলেছেন, ‘‘কোনও রকম সম্পর্কই আর রাখা যাবে না পাকিস্তানের সঙ্গে। সেনাবাহিনীর প্রতিটি সদস্যের পাশে আছি আমরা। ওদের আত্মত্যাগ যেন বৃথা না যায়।’’

জঙ্গী হামলার জেরে সিসিআই ঢেকে দিয়েছে ইমরান খানের ছবি। পঞ্জাব ক্রিকেট সংস্থা (পিসিএ) আবার সরিয়ে দিয়েছে মোহালি স্টেডিয়ামে থাকা ১৫ পাক ক্রিকেটারের ছবি। এ দিন পাল্টা বিবৃতি দিয়ে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) জানিয়েছে, পাক ক্রিকেটারদের ছবি যে ভাবে ঢেকে দেওয়া হয়েছে বা সরিয়ে দেওয়া হয়েছে, তাতে তারা খুশি নয়। এমনকি, এই মাসে আইসিসির বৈঠকে তারা এই নিয়ে ভারতীয় বোর্ড কর্তাদের সঙ্গে কথা বলবে বলেও জানিয়েছে পিসিবি।

ভারতীয় দলের ক্রিকেটারেরাও পুলওয়ামার জঙ্গী হামলা নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়ে চলেছেন। বিরাট কোহলি, শিখর ধওয়নের পরে মুখ খুলেছেন মোহাম্মদ শামিও। এই পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠছে, ভারত-পাক ক্রিকেট দ্বৈরথের কী হবে? সোমবার এই প্রশ্ন রাখা হয়েছিল আইপিএল চেয়ারম্যান রাজীব শুক্লের কাছে। তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, সরকারের সবুজ সঙ্কেত ছাড়া দু’দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক ক্রিকেট সিরিজ সম্ভব নয়। শুক্ল বলেন, ‘‘আমাদের অবস্থান খুব পরিষ্কার। সরকার না বললে আমরা পাকিস্তানের সঙ্গে খেলব না। খেলাধুলো এ সবের ঊর্ধ্বে ঠিকই, কিন্তু কেউ যদি সন্ত্রাসকে সমর্থন করে যায়, তা হলে খেলাতেও তার প্রভাব পড়ে।’’

মাস কয়েক বাদেই ভারত-পাকিস্তানের দেখা হতে চলেছে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে। যে ম্যাচ বাতিলের দাবি ক্রমশ জোরদার হচ্ছে। বিশ্বকাপে কি পাকিস্তানের সঙ্গে খেলবে ভারত? এই প্রশ্নের অবশ্য সরাসরি কোনও জবাব দেননি শুক্ল। এড়িয়ে গিয়ে বলেছেন, ‘‘সেটা এই মুহূর্তে বলা সম্ভব নয়। বিশ্বকাপের এখনও অনেক দেরি আছে। দেখা যাক কী হয়।’’ চলতি বছরের ১৬ জুন, ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হওয়ার কথা।

পাকিস্তান আবার পরিষ্কার বুঝিয়ে দিয়েছে, তাদের দেশের ক্রিকেট তারকাদের প্রতি ভারতে যে মনোভাব দেখা যাচ্ছে, তাতে তারা মোটেই খুশি নয়। পাক বোর্ডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ওয়াসিম খান বলেছেন, ‘‘আমরা সব সময় বিশ্বাস করে এসেছি যে রাজনীতি এবং খেলাকে আলাদা রাখতে হবে। ইতিহাস বলছে খেলাধুলো, বিশেষ করে ক্রিকেট, দুই দেশ এবং নাগরিকদের মধ্যে একটা সেতুবন্ধনের কাজ করেছে। কিন্তু এখন ভারতের একটি ঐতিহ্যশালী ক্রিকেট ক্লাব এবং সে রকমই ঐতিহ্যশালী একটা ক্রিকেট স্টেডিয়াম থেকে যে ভাবে ইমরান খান এবং আরও সব কিংবদন্তি পাক ক্রিকেটারের ছবি সরানো হয়েছে বা ঢেকে দেওয়া হয়েছে, তা অত্যন্ত দুঃখজনক।’’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা