১৮ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিলেট সিটি মেয়রের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে মানববন্ধন ও প্রতীকী আত্মাহুতি কর্মসূচী পালন করা হয়। প্রদীপ্ত সিলেটের ব্যানারে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধনে কাফনের কাপড় ও ফুলের মালা পরে প্রতীকী আত্মাহুতি করেন দুর্নীতির শিকার ব্যবসায়ী সঞ্জয় রায়। এর আগে সকাল সাড়ে দশটায় এই বিষয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। মানববন্ধনে নিজেকে দুর্নীতির শিকার দাবি করে ব্যবসায়ী সঞ্জয় রায় বলেন, ২০১৪ সালে সিলেট সিটি কর্পোরেশনে নগর ভবন নির্মাণের জন্য একটি ওয়ার্ক অর্ডার হয়। এ ওয়ার্ক ওয়ার্ডারটি ষোল কোটি আট লক্ষ টাকা মূল্যে মাহবুব ব্রাদার্স প্রাইভেট লিমিটেডকে প্রদান করা হয়। মাহবুব ব্রাদার্স কাজটি সম্পাদনের জন্য ২০১৪ সালের ২৩ নবেম্বর সম্পাতপা এন্টারপ্রাইজের প্রোপাইটর আমি সঞ্জয় রায়ের সঙ্গে চুক্তি করে। কাজ শুরুর পর নগর ভবন থেকে মাহবুব ব্রার্দাসকে প্রাইভেট লিমিটেডের নামে বিল ইস্যু করা হতো এবং মাহাবুব ব্রাদার্স অফিস থেকে তিনি নিয়মিত চেক গ্রহণ করে আমার মনোনীত একাউন্টে লেনদেন করা হতো। মোট কাজের আনুমানিক ৫ শতাংশ কাজ বাকি থাকাবস্থায় সঞ্জয় রায়ের লিভার সিরোসিস রোগ ধরা পড়লে তিনি জরুরীভাবে ইন্ডিয়াতে চিকিৎসা নিতে চলে যান। সে সময় মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী মূল ঠিকাদার মাহাবুব ব্রাদার্সকে জিম্মি করে দুই কোটি ছেষট্টি লাখ টাকার চূড়ান্ত বিল সঞ্জয় রায়ের অগোচরে রেখে আত্মসাত করেন। সঞ্জয় রায় বলেন, এক পর্যায়ে ২ বছর অতিবাহিত হওয়ার পর কাজের বিপরীতে সিটি কর্পোরেশনে রক্ষিত জামানতের এক কোটি আটান্ন লাখ টাকা মেয়র আরিফ মাহাবুব ব্রাদার্সকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার সহযোগী হোটেল ক্যাপিটালের পরিচালক তোফায়েল খানের ব্যাংক এ্যাকাউন্টে নিয়ে আসেন।