২০ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চেলসি যাচ্ছেন জিদান!

স্পোর্টস রিপোটার ॥ ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের অন্যতম সেরা ক্লাব চেলসির কোচ হিসেবে বেশ ভালই শুরু করেছিলেন মাউরিসিও সারি। তবে শুরুর সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেননি তিনি। সম্প্রতি ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ৬-০ গোলে লজ্জাজনকভাবে পরাজিত হয় তারা। আর সেই পরাজয়ের পরই চেলসি কোচ মাউরিসিও সারির বিকল্প নিয়ে গুঞ্জন উঠেছে। আর এমন সময় ইংলিশ লীগের ক্লাব চেলসির কোচ হিসেবে আসার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন জিনেদিন জিদান। তবে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে আসার আগে ক্লাবটির কর্তাব্যক্তিদের কিছু শর্ত দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক এই অভিজ্ঞ কোচ।

এ বিষয়ে দ্য সান তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ইংলিশ লীগের এ ক্লাবে আসতে বিশ্বকাপজয়ী জিদানের কয়েকটি শর্ত হচ্ছে, দলটির অন্যতম সেরা তারকা এডেন হ্যাজার্ডকে চেলসির না ছাড়ার নিশ্চয়তা। দল গঠনের জন্য ক্লাবটির মালিকের কাছে ২০০ মিলিয়ন পাউন্ডের বাজেট। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, চেলসির তারকা হ্যাজার্ডকে নিয়ে রিয়ালের আগ্রহে এখনও ভাটা পড়েনি। বেলজিয়ান এই ফরোয়ার্ড নিজেও রিয়ালে পাড়ি দিতে মুখিয়ে আছেন। অর্থাৎ জিদানের প্রথম শর্ত পূরণ না হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। এরপর আসে ট্রান্সফার বাজেট। চেলসির মালিক ও রাশিয়ান ধনকুবের রোমান আব্রাহামোভিচের জন্য এই শর্ত কঠিন কিছু নয়।

তবে, চলতি মৌসুম শেষে সারি’কে চেলসি ছাড়তে হবে এটা অনেকটাই নিশ্চিত। কারণ, শীর্ষ দুই দলের একটি হওয়ার সুযোগ তাদের সামনে কমই আছে। লিভারপুল আর ম্যানচেস্টার সিটির মধ্যে ১ আর ২ নিয়ে মিউজিক্যাল চেয়ার খেলা চলছে। বাকিরা সেখানে পার্শ্ব-চরিত্রে পরিণত হয়েছে। তাছাড়া চ্যাম্পিয়নস লীগে সাফল্য পাওয়ার ক্ষুধায় চেলসি বহু আগে থেকেই জর্জরিত। সেখানে জিদান রিয়ালকে টানা তিনবার ইউরোপ সেরার তকমা এনে দিয়েছেন। দুইয়ে দুইয়ে চার মিলে গেলে তাই অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। জানিয়ে রাখা ভাল, স্পেনের জায়ান্ট ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সফল একটি অধ্যায় শেষ করে ২০১৮ সালের পর এখনও কোথাও যোগ দেননি জিদান। লস ব্ল্যাঙ্কোসদের টানা তিন চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শিরোপা জিতিয়ে নিজেকে অনন্য এক উচ্চতায় নিয়ে যান এই ফরাসী কোচ।

এদিকে, জিদানের মতো মরিনহোও এখন চাকরিবিহীন। গত বছরেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে বহিষ্কার হন স্পেশাল ওয়ান। এর মধ্যে কাতার, রাশিয়া ভ্রমণ করেছেন তিনি। রবিবার দেখলেন লীগ ওয়ানের একটি ম্যাচও। এরপর ফ্রান্সের লীগ ওয়ানে একদিন কোচিং করাবেন এই আশার কথা বললেন পর্তুগীজ কোচ। মরিনহো ইউরোপের শীর্ষ পর্যায়ে কোচিং করানো শুরু করেছিলেন পর্তুগালের ক্লাব দিয়ে। এরপর স্পেন, ইতালি এবং ইংলিশ লীগে কোচিং করিয়েছেন তিনি। তাও আবার যে সে ক্লাবে নয়। মরিনহো রিয়াল মাদ্রিদ, চেলসির পর ম্যানইউয়ের দায়িত্ব পালন করেছেন। পোর্ত, বেনফিকা এবং ইন্টার মিলানের কোচ হিসেবে ট্রফি জিতেছেন তিনি। কোচিং ক্যারিয়ারে মরিনহো ২৫ বার শিরোপা জয়ের স্বাদ পেয়েছেন।

তারপরও মরিনহোর এখনও জার্মানির বুন্দেসলিগা এবং ফ্রান্সের লীগ ওয়ানে কোচিং করানোর অভিজ্ঞতা নেয়া হয়নি। এবার মরিনহো জানালেন তার সেই ইচ্ছার কথা, ‘নিজেকে একদিন ফ্রান্স লীগের কোচ হিসেবে দেখি আমি। আমি বিভিন্ন দেশে ভিন্ন ভিন্ন দলের কোচিং করিয়েছি। আলাদা সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিত হয়েছি। আমি অন্যান্য লীগেও কাজ করে সেখান থেকে শিখতে চাই।’ কোচিংয়ের বাইরে থাকার সময়টা মরিনহো সেরা ব্যবহার করছেন বলে উল্লেখ করেন, ‘আমি এখন খুব শান্ত আছি। সময়টা পরিবার এবং বন্ধুদের সঙ্গে দারুণ উপভোগ করছি।’ ফুটবলে কোচিং করানোর সুযোগ তার সামনে খুব দ্রুত আসবে বলেও মনে করেন তিনি।