১৯ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

টাঙ্গাইলে ২৫৬১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৮৮২টিতেই শহীদ মিনার নেই

টাঙ্গাইলে ২৫৬১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে  ১৮৮২টিতেই শহীদ মিনার নেই

নিজস্ব সংবাদদাতা, টাঙ্গাইল ॥ ভাষা আন্দোলনে টাঙ্গাইলের গুরুত্বপূর্ণ অবদান থাকলেও জেলার ২৫৬১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৮৮২টিতেই নেই শহীদ মিনার। এতে দেশপ্রেম ও বাঙ্গালির চেতনাবোধ প্রশ্নবিদ্ধ বলে মন্তব্য করেছেন ভাষা সৈনিকসহ অনেকেই।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের তথ্যমতে, টাঙ্গাইলের ১২টি উপজেলার মোট ১৬২৩টি বিদ্যালয়ের মধ্যে ১৩২৯টিতেই শহীদ মিনার নেই। এরমধ্যে ঘাটাইলের ১৭৩টির মধ্যে ১৪টিতে, সখীপুরে ১৪৭টির মধ্যে ৭৬টিতে, গোপালপুরে ১৫৯টির মধ্যে ৮টিতে, বাসাইলে ৭৯টির মধ্যে ৮টিতে, টাঙ্গাইল সদরের ১৬৪টির মধ্যে ১৭টিতে, দেলদুয়ারের ১০০টির মধ্যে ৮টিতে, মির্জাপুরে ১৭০টির মধ্যে ৪৫টিতে, কালিহাতীর ১৭০টির মধ্যে ৩০টিতে, মধুপুরে ১১০টির মধ্যে ২৮টিতে, নাগরপুরে ১৫৬টির মধ্যে ১৫টিতে, ভূঞাপুরে ১১০টির মধ্যে ২১টিতে এবং ধনবাড়ীর ৮৫টির মধ্যে ২৪টিতে মোট ২৯৪টি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার রয়েছে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল আজিজ বলেন, বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার নির্মাণের জন্যে সরকারিভাবে বরাদ্দ থাকে না। তবুও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় উদ্যোগে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারী থেকে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত সারা জেলায় ১৬১টি বিদ্যালয়ে নতুন শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে। এরমধ্যে শুধুমাত্র সখীপুর উপজেলায়ই ৭০টি নতুন শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে।

এদিকে জেলা শিক্ষা অফিসের অধীনে ৯৩৮টি হাইস্কুল, কলেজ, কারিগরি, এবতেদায়ী ও মাদ্রাসা রয়েছে। এরমধ্যে ৫৫৩টি প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই। অফিস সূত্রে জানা যায়, টাঙ্গাইল সদরের ১০৪টির মধ্যে ১৭টিতে, বাসাইলের ৪২টির মধ্যে ১৫টিতে, কালিহাতীর ৮৭টির মধ্যে ৫২টিতে, সখীপুরের ১০১টির মধ্যে ২৭টিতে, ঘাটাইলের ১১৫টির মধ্যে ৩৮টিতে, গোপালপুরের ৮৪টির মধ্যে ৪৩টিতে, মধুপুরের ৭৭টির মধ্যে ৩২টিতে, ধনবাড়ীর ৬৬টির মধ্যে ২৬টিতে, মির্জাপুরের ৭৬টির মধ্যে ৫০টিতে, দেলদুয়ারের ৩৮টির মধ্যে ২৩টিতে, নাগরপুরের ৭৭টির মধ্যে ৩৭টিতে ও ভূঞাপুরে ৭১টির মধ্যে ২৫টি মোট ৩৮৫টিতে প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার রয়েছে।

জেলা শিক্ষা অফিসার লায়লা খানম বলেন, প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই শহীদ মিনারের প্রয়োজন। শুভ দিক হলো মাদ্রাসাগুলোতে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হচ্ছে। টাঙ্গাইলের ৬টি উপজেলায় ১২টি মাদ্রাসায় শহীদ মিনার রয়েছে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক শহীদুল ইসলাম বলেন, শহীদ মিনার আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং বাঙ্গালীর চেতনার অংশ। কোমলমতি শিশুসহ শিক্ষার্থীদের মনে মাতৃভাষার সঠিক ইতিহাস তুলে ধরার জন্য মাদ্রাসাসহ প্রতিটি বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার থাকা উচিত। জেলায় এতোগুলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই, এর সঠিক তথ্য আমাদের কাছে ছিল না। শহীদ মিনার নির্মাণে আমরা বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে অনুপ্রাণিত করবো। প্রয়োজনে আর্থিক সাহায্য দেয়া হবে। সেই সাথে শহীদ মিনার নির্মানে স্থানীয়ভাবে বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে।