২০ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্বর্ণ নীতিমালার নতুন ধারা নিয়ে সংশয়ে ব্যবসায়ীরা

স্বর্ণ নীতিমালার নতুন ধারা নিয়ে সংশয়ে ব্যবসায়ীরা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ স্বর্ণ নীতিমালায় যোগ হওয়া নতুন ধারায় বলা হয়েছে, সারাদেশে একই সাথে একই দিনে একটি প্রদর্শনী বা মেলায় প্রদর্শনের মাধ্যমে বৈধ করা যাবে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের কাছে থাকা মজুদ করা স্বর্ণ। যার জন্য গুণতে হবে ভরিতে ১ হাজার টাকা কর। মার্চের শেষ অথবা এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের কোনো এক দিন অনুষ্ঠিত হবে এই মেলা। নতুন নীতিমালাকে স্বাগত জানালেও বাস্তবায়ন নিয়ে ব্যবসায়ীদের রয়ে গেছে সংশয়।

বিশ্লেষকরা বলছেন, সময়োপযোগী নীতিমালার মাধ্যমে আসতে পারে বিপুল বিদেশী মুদ্রা। স্বর্ণ কেবল একটি ধাতব বস্তুই নয় বাঙ্গালী সমাজে বিয়ে সাদি, উৎসব-পার্বনে সৌন্দর্য্যের অন্যতম অনুসঙ্গও। স্বর্ণকে কেন্দ্র করে প্রতিদিন বিপুল পরিমাণ অর্থনৈতিক কর্মকান্ড হয় দেশের কেন্দ্র থেকে প্রান্ত সবখানে। অর্ধশতকেরও পুরনো এই ব্যবসায় স্বর্ণ আমদানির অস্বচ্ছ প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনাও দীর্ঘ দিনের। নানা জল ঘোলার পর গেল অক্টোবরে প্রথমবার স্বর্ণ নীতিমালা করে সরকার।

যাতে বলা হয়, অনুমোদিত ডিলারের মাধ্যমে আমদানি করা হবে স্বর্ণ যা নিয়ন্ত্রণ করবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর মাস তিনেক পরেই এতে যোগ হয় নতুন ধারা। বলা হয়, সারাদেশে একই সাথে একই দিনে একটি প্রদর্শনী বা মেলায় প্রদর্শনের মাধ্যমে বৈধ করা যাবে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের কাছে মজুদ স্বর্ণ। যার জন্য গুণতে হবে ভরিতে ১ হাজার টাকা কর।

মার্চের শেষ অথবা এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের কোনো এক দিন অনুষ্ঠিত হবে এই মেলা। আর আমদানির ক্ষেত্রে স্বর্ণ ও স্বর্ণালঙ্কারে ১ হাজার, ডায়মন্ডের ক্ষেত্রে ৬ হাজার আর রৌপ্যে ভরিতে গুণতে হবে ৬০ টাকা কর। নীতিমালার এই উদ্যোগকে স্বাগত জানালেও এর বাস্তবায়ন নিয়ে রয়ে গেছে খানিকটা সংশয়।