২০ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চক বাজারের অগ্নিকান্ডে কয়েক হাজার কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতি

চক বাজারের অগ্নিকান্ডে কয়েক হাজার কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ পুরান ঢাকার ঐতিহ্য ও পাইকারি বাজার হিসেবে খ্যাত চকবাজারের ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ব্যবসা-বাণিজ্যে বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতি হয়ে গেছে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। সঠিক হিসেব নিরূপণ না হলেও ব্যবসায়ী ও শিল্পোদ্যোক্তাদের ধারণা মতে, জীবনহানির পাশাপাশি কয়েক হাজার কোটি টাকার মালামাল পুড়ে গেছে অগ্নিকান্ডে। ইতোমধ্যে ব্যবসায়ী ও শিল্পোদ্যোক্তাদের শীর্ষ সংগঠন এফবিবিসিসিআই থেকে চকবাজারের অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ জানানো হয়েছে।

এছাড়া নিহত ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছে সংগঠনটি। এছাড়া গভীর উদ্বেগ ও শোক প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল, পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, শিল্পমন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, এফবিসিসিআই সভাপতি মো. সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, সিনিয়র সহসভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম প্রমুখ।

এফবিসিসিআই থেকে চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে হতাহতের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে নিহতদের আত্মর মাগফেরাত কামনা করছে। এবং নিহতদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছে। একইসাথে এফবিসিসিআই অগ্নিকান্ডের ঘটনায় সকল আহতের দ্রুত সুস্থ্যতা কামনা করছে। অগ্নিকান্ডের পর দ্রুততার সাথে আগুন নিভিয়ে আনা এবং আহতদের উদ্ধারে আন্তরিক ও দায়িত্বপূর্ন ভূমিকার জন্য এফবিসিসিআই ফায়ার সার্ভিস বিভাগের সকল কর্মীকে ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছে ।

সংগঠনটির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পুরান ঢাকা নিজের বুকে শুধু শতশত বছরের ঐতিহ্যই লালন করে না, বুকে ধারণ করে রেখেছে হাজারো উৎপাদনমুখী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এই সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রতিদিন শত কোটি টাকারও বেশি লেনদেন হয়। সৃষ্টি হয়েছে কয়েক লাখ মানুষের কর্মসংস্থান। লালবাগ, বংশাল, চকবাজার আর কোতোয়ালি এই ৪ থানা থেকে সরকারের আদায়কৃত কর এবং মূসকের পরিমাণ দেশের যে কোন অঞ্চল থেকে বেশি। কিন্তু পুরান ঢাকার জনগণ প্রচুর কর দেয়ার পরেও অধিকাংশ নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত। অপরিসর রাস্ত, মাথার উপর বৈদ্যুতিক তারের জঙ্গল আর বোমা সদৃশ কেমিক্যাল জারকিন, এই নিয়েই বসবাস তাদের।

সামান্য স্ফুলিঙ্গও তাদের জন্য মৃত্যুবান নিয়ে আসে। এভাবেই জীবন চলে, চলে পণ্যের উৎপাদন আর চলে কর প্রদান করে রাষ্ট্রযন্ত্রকে এগিয়ে নেয়ার কাজ। অগ্নিকান্ডের এ ঘটনায় ইতোমধ্যে শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে বার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে নিহত শ্রমিকদের এক লাখ টাকা করে অনুদান দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অগ্নিকান্ডের এ ঘটনায় পুরান ঢাকার ব্যবসা-বাণিজ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে পাইকারি ব্যবসায় বড় ধরনের বিপর্যয়ের মুখে পড়লো। সারাদেশে থেকে প্রতিদিন এই চকবাজারে কয়েক হাজার পাইকারি আসেন। মালামাল অর্ডার ও বুকিং দিয়ে আবার ফিরে যান নিজ প্রতিষ্ঠানে।

কিন্তু এই ঘটনার ফলে ইতোমধ্যে সারাদেশের পাইকারিদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। আগামীতে পণ্য না পেলে ব্যবসা টিকবে কিনা সেই আশঙ্কাও রয়েছে তাদের। এছাড়া পণ্যসামগ্রীর দাম বেড়ে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। অগ্নিকান্ডের ফলে বিপুল পরিমাণ উৎপাদিত পণ্য ও কাঁচামাল পুড়ে গেছে।