২৬ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নির্মাণাধীন ভবন ধসে ৩ প্রকৌশলী বরখাস্ত ॥ কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নির্মাণাধীন ভবন ধসের ঘটনায় গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম, এমপি’র নির্দেশে তাৎক্ষণিকভাবে তদন্ত করে প্রাপ্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী (সিভিল) এ. জেড. এম. শফিউল হান্নান এবং উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী (সিভিল) আব্দুল মোতালেবকে সরকারী কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপীল) বিধিমালা, ২০১৮ অনুযায়ী সরকারী চাকরি হতে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এর আগে সর্বক্ষণিক দায়িত্বে থাকা কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) মোঃ আব্দুর রশিদকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। এ নিয়ে মোট তিনজনকে বরখাস্ত করা হলো।

কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ ও ৫০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল স্থাপন প্রকল্পের অধীন হাসপাতাল ভবনের পোর্চ নির্মাণকালীন গত ১৭ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে নির্মাণাধীন ছাদ ধসে পড়ে। এ দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে একজন শ্রমিক নিহত হয় ও ৫ শ্রমিক আহত হয়। দুর্ঘটনার কারণে ওইদিনই (১৭ জানুয়ারি ২০১৯) প্রাথমিক তদন্ত করে গণপূর্ত অধিদফতর গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন প্রেরণ করে। তদন্ত প্রতিবেদনের সুপারিশের ভিত্তিতে মন্ত্রণালয় তাৎক্ষণিকভাবে বর্ণিত নির্মাণ কাজের সর্বক্ষণিক দায়িত্বে থাকা কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) মোঃ আব্দুর রশিদকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে। একইসঙ্গে ১৭ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখেই মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ ইমরুল চৌধুরীকে আহ্বায়ক করে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে এবং কমিটিকে ৩ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়। গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুততার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। তদন্ত কমিটি সরেজমিনে পরিদর্শন শেষে গত ২২ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে তদন্ত প্রতিবেদন গৃহায়ন ও গণপূর্ত সচিব বরাবর দাখিল করে। তদন্ত প্রতিবেদনে কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের ৩ কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট দুটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান The Engineers and Arichitects Ltd (TEAL) ও Jahirul Ltd (JV)-কে বর্ণিত ঘটনার জন্য দায়ী করা হয়েছে।