২০ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গাজীপুরে অজ্ঞান ও মলম পার্টির ৭ সদস্য আটক

গাজীপুরে অজ্ঞান ও মলম পার্টির ৭ সদস্য আটক

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর ॥ গাজীপুরে অজ্ঞান ও মলম পার্টির ভয়ঙ্কর সাত সদস্যকে আটক করেছে র্যাব-১ এর সদস্যরা। চক্রটির সদস্যরা বিভিন্ন চলন্তবাসে উঠে এবং জনাকীর্ণস্থানে গিয়ে নানা কৌশলে ঔষধ মেশানো দ্রব্যাদি খাইয়ে অজ্ঞান করে সাধারণ মানুষদের কাছ থেকে সর্বস্ব লুট করে আসছিল। তাদের প্রয়োগকৃত ঔষধের ফলে অনেকের প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেছে। আজ শুক্রবার র্যাব-১’র স্পেশালাইজ কোম্পানী পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার লেঃ কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন এ তথ্য জানিয়েছেন।

আটককৃতরা হলো- মাদারীপুরের রাজৈর থানার বদরপাশা এলাকার মৃত ফরমান ব্যাপারীর ছেলে মোঃ ইমরান ব্যাপারী (৫৫), একই জেলার শিবচর থানার রিয়াজউদ্দিন মাতবরকান্দি এলাকার মোতলেব ফকিরের ছেলে মোঃ মাহবুব ফকির (৩৭) (বর্তমানে- ঢাকার দক্ষিণখান মধুবাগ এলাকার এ্যাডঃ আনোয়ারের বাড়ির ভাড়াটিয়া), নরসিংদীর মনোহরদী থানার গোঘোলা এলাকার আব্দুর আওয়ালের ছেলে মোঃ জাকির হোসেন (৪০), কুষ্টিয়ার মিরপুর থানার বলিদাপাড়া এলাকার মৃত চাঁদ আলী মোল্লার ছেলে মোঃ কারিবুল ইসলাম (৫১), গাজীপুরের শ্রীপুর থানার সাটিয়াবাড়ি এলাকার মৃত হযরত আলীর ছেলে মোঃ আব্দুল খালেক (৮২), একই থানার সোনাবর এলাকার মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে মোঃ আব্দুল মতিন (৬০) এবং বরিশালের হিজলা থানার চরমেমান্না এলাকার জাহাঙ্গীর হাওলাদারের ছেলে মোঃ জামাল হাওলাদার (৪০)।

র্যাব-১’র স্পেশালাইজ কোম্পানী পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার লেঃ কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের সদর থানাধীন পোড়াবাড়ি মাস্টারবাড়ি এলাকায় বৃহষ্পতিবার রাতে অজ্ঞান ও মলম পার্টির ভয়ঙ্কর কয়েক সদস্য অপরাধকর্ম সংঘটনের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে। এ গোপন সংবাদ পেয়ে র্যাব-১’র স্পেশালাইজ কোম্পানী পোড়াবাড়ী ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডারের নেতৃত্বে র্যাব সদস্যরা ওই এলাকার কাউলতিয়া রোডস্থ গিয়াসউদ্দিন মার্কেটের সামনে অভিযান চালিয়ে অজ্ঞান ও মলম পার্টির ৭ সদস্যকে আটক করে। এসময় তাদের কাছ থেকে তাদের কাছ থেকে অজ্ঞানকাজে ব্যবহৃত ঘুমের ঔষধ মিশ্রিত ২ পুরিয়া হালুয়া, লুন্ঠনকৃত ৯ টি মোবাইল ফোন ও নগদ ৬১০০/- টাকা উদ্ধার করা হয়।

ওই কর্মকর্তা আরো জানান, আটককৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, ভয়ঙ্কয় চক্রটির সদস্যরা পরস্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন যানবাহনসহ জনাকীর্ণ স্থানে নানা কৌশলে সাধারণ মানুষকে ঘুমের ঔষধ মেশানো হালুয়াসহ নানা দ্রব্যাদি খাইয়ে সবর্স্ব লুট করে আসছে। তাদের মাত্রাতিরিক্ত ঔষধ প্রয়োগের ফলে ভিকটিম ৪৮ ঘন্টারও বেশি সময় অজ্ঞান হয়ে থাকে, এতে করে বড় ধরনের শারিরীক ক্ষতি ছাড়াও প্রাণহানীর সম্ভাবনা থাকে।