২১ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেধাবী তাওশিকের চিকিৎসা সাহায্যার্থে ‘ঠাকুর ঘরে কে রে ’নাটকের মঞ্চায়ন

মেধাবী তাওশিকের চিকিৎসা সাহায্যার্থে ‘ঠাকুর ঘরে কে রে ’নাটকের মঞ্চায়ন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যায়ন বিভাগের ৫ম ব্যাচের সেরা ছাত্র তাওশিক আহমেদ। সম্প্রতি সে ফুসফুসে ক্যান্সারে আক্রান্ত। তার চিকিৎসা সাহায্যার্থে ঢাকার তারুণ্যদীপ্ত নাট্যদল ‘নাটুকে’ প্রযোজিত ‘ঠাকুর ঘরে কে’ নাটকের মঞ্চায়ন শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে ১১ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায়। অনুষ্ঠান সহযোতিায় রয়েছে থিয়েটারক্যানফান্ড। ফরাসি নাট্যকার মার্ক ক্যামোলতি রচিত বিশ্ব মঞ্চ নাটকের সেরা পুরষ্কার ‘মলিয়্যের এওয়ার্ড’ বিজয়ী ফরাসি নাটক ‘পাজামা সিক্স পোর’র রুপান্তর এই নাটক। অনুবাদ ও নির্মান করেছেন আল নোমান। নাটকের কাহিনী সম্পর্কে আল নোমান জানান, এক সপ্তাহান্তে স্যামুয়েল তার স্ত্রী জ্যাকলিনকে (একরকম জোর করেই) মায়ের বাড়ি পাঠিয়ে দিয়ে নিজের বাড়িতে তার মডেল গার্লফ্রেন্ড সুজেনের (ডাক নাম সুজি) জন্মদিন উদযাপন এবং দুদিন একসাথে কাটানোর ফন্দি আঁটে..! কোন অনাকাংখিত ঘটনা থেকে বাঁচতে তার পুরোনো বন্ধু হাবাগোবা প্যাট্রিককে হং কং থেকে ডেকে পাঠায়। সেই প্যাট্রিক হচ্ছে আবার জ্যাকলিনের পুরোনো প্রেমিকও। এবং রান্নার জন্যে এজেন্সি থেকে সুজিত ( তার ডাক নামও সুজি) নামের এক মহিলা বাবুর্চিকে ভাড়া করে। যেই জ্যাকলিন মা’র বাড়ির উদ্দেশ্যে বের হবে তখনই ফোন রিসিভ করে জানতে পারে সুজিত নামের একটা মেয়ে পাঠাচ্ছে এজেন্সি। জ্যাকলিনের মনে খটকা লাগে। তৎক্ষনাৎ আরেকটা ফোন এলে রিসিভ করে জানে যে, তার পুরোনো প্রেমিক প্যাট্রিককেও স্যামুয়েল দাওয়াত করেছে এবং সে এসে পড়েছে প্রায়। সেই বা তার পুরোনো প্রেমিকের সাথে সময় কাটানোর এই সুযোগ হাত ছাড়া করবে কেন। স্যামুয়েলের দুরভিসন্ধি বুঝতে পেরে জ্যাকলিন স্যামুয়েলকে এই মাত্র মা ফোন করেছে, তার ফ্লু হয়েছে এবং এখন যেতে মানা করে দিয়েছে বলে খেলায় উল্টো চাল দেয়। স্যামুয়েলের মাথায় যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়ে। খেলা জমে উঠতে থাকে যখন মডেল সুজির বদলে বাবুর্চি সুজি এসে পড়ে, এসে পড়ে প্যাট্রিক এবং সুজেন। এরকম দম ফাটানো হাসির নানান ঘটনার মধ্যে দিয়ে এগিয়ে চলে নাটক ‘ঠাকুর ঘরে কে রে’। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয়ে রয়েছেন আল নোমান, শ্যামল, মনি, অর্চি, সজিব ও টিপতি।