১৮ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এডিআর রেশিও বেশি ২০ ব্যাংকের

এডিআর রেশিও বেশি ২০ ব্যাংকের

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ নতুন আমানতের তুলনায় দ্বিগুণ হারে ঋণ বিতরণ করছে বেশিকিছু ব্যাংক। মানছে না কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনাও। আগ্রাসীভাবে ঋণ বিতরণ করে তারা খালি করছে ব্যাংকের ভল্ট। এতে করে ঝুঁকিতে পড়ছে গ্রাহকদের আমানত। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা উপেক্ষা করে আগ্রাসী ব্যাংকিংয়ের তালিকায় রয়েছে সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে মোট ২০ ব্যাংক।

এগুলো হচ্ছে- রাষ্ট্রায়ত্ত বেসিক ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, বেসরকারি এবি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক, । এছাড়া চতুর্থ প্রজম্মের পদ্মা ব্যাংক (ফারমার্স ব্যাংক), এনআরবি গ্লোবাল, এনআরবি কমার্শিয়াল, ইউনিয়ন ব্যাংক, মিডল্যান্ড ব্যাংক, মধুমতি ব্যাংক ও সীমান্ত ব্যাংক।

জানা গেছে, আমানতের তুলনায় ঋণ প্রবৃদ্ধি অধিকহারে বাড়ার কারণে ঋণ-আমানত অনুপাত (এডিআর) নিয়ে নতুন নির্দেশনা দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। নির্দেশনায় এডিআর কমিয়ে প্রচলিত ধারার ব্যাংকগুলোকে ৮৩ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ইসলামী শরিয়াভিত্তিক পরিচালিত ব্যাংকগুলোকে ৮৯ শতাংশে নামিয়ে আনতে বলা হয়। যা আগে ছিল সাধারণ ব্যাংকের ৮৫ শতাংশ ও শরিয়াভিত্তিক ব্যাংকের ৯০ শতাংশ।

ওই সময় ১৪টি ব্যাংকের এডিআর নির্ধারিত সীমার উপরে ছিল। তারা নির্ধারিত সময়ে এডিআর সমন্বয় করতে পারেনি।