২৭ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বুড়িগঙ্গা-তুরাগে আরো ৫৭ টি অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে

বুড়িগঙ্গা-তুরাগে আরো ৫৭ টি অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বুড়িগঙ্গা-তুরাগে উচ্ছেদ অভিযানের ১৭-তম দিনে আরো ৫৭টি অবৈধ স্থাপনা ভেঙ্গেচুরে গুড়িয়ে দিয়েছে বিআইডাব্লিউটিএ। এ সপ্তাহের অভিযানে প্রথম এ দু’দিনে মোট ১১২টি স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে তারা। অভিযানটি বুধবার মোহাম্মাদপুর থানার ঢাকা উদ্যান, রামচন্দ্রপুর ও বিপরীত পার্শ্বে সাভার থানার বড়বরদেশী এলাকায় সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত একটানা এই অভিযান চালান হয়।

এসময় সিলিকন সিটি হাউজিং, আকাশ নীলা ওয়েস্টার্ন সিটি লি:, অর্ণিবান ও তুরাগ হাউজিংয়ের নদীর তীরে গড়ে তোলা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। তবে এই দিনের অভিযানে কেউ কোন অভিযোগ বা বাঁধা সৃষ্টি করেনি বলে জানিয়েছেন বিআইডাব্লিটিএ যুগ্ম পরিচালক একেএম আরিফ উদ্দিন।

অভিযানে ১৬ টি পাকা ভবনের মধ্যে এক তলা ভবন ১৩টি, দোতালা ১টি, তিন তলা ১টি এবং চার তলা ভবন রয়েছে ১টি। এছাড়া রয়েছে আধা পাকা ভবন ১০টি এবং বাউন্ডারি ওয়াল ৩১টি। তবে এ সপ্তাহের তৃতীয় দিনের মত অভিযান আগামীকাল সকাল ৯ টা থেকে মোহাম্মাদপুর থানার রামচন্দ্রপুর এলাকা ও তুরাগ নদের বিপরীত পার্শ্বে চলমান থাকবে বলে জানিয়েছেন বিআউডাব্লিউটিএ।

জানা যায়, ২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একনেক বৈঠকে ঢাকার চারপাশের নদীর দূষণ বন্ধ ও নাব্যতা ফিরিয়ে এনে নদী রক্ষায় টাস্কফোর্স গঠন করেন। তারই ধারাবাহিকতায় এ উচ্ছেদ কার্যক্রম চলছে। এর আগে প্রথম দফায় গত ২৯ জানুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সপ্তাহে তিন দিন করে মোট ১২ দিন উচ্ছেদ অভিযান চলে।

ওই সময় ১ হাজার ৭২১টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। তবে দ্বিতীয় দফায় দ্বিতীয় পর্যায়ের ৫ দিনের অভিযানে মোট ২৬০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। এ বিষয়ে সম্প্রতি নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী সংসদে বলেছেন, নদী তীরে অবৈধ দখল উচ্ছেদ ঠেকাতে কারও প্রভাবই খাটবে না। বিআইডব্লিউটিএ যে অভিযান শুরু করেছে, তা অব্যাহত থাকবে।