২৬ জুন ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘সুদক্ষ অভিনেতা আনোয়ার হোসেন: জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

‘সুদক্ষ অভিনেতা আনোয়ার হোসেন: জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত

অনলাইন ডেস্ক ॥ বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে অনুষ্ঠিত সেমিনারে বক্তারা বলেছেন চলচ্চিত্র অভিনেতা আনোয়ার হোসেন ছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের মুকুটহীন সম্রাট। তারা বলেন, ষাটের দশকে আনোয়ার হোসেনের চলচ্চিত্রে অভিনয় যাত্রা শুরু হয়। ৫২ বছরের চলচ্চিত্রজীবনে তিনি অভিনয় করে গিয়েছেন সদর্পে। ১৯৬১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত মহিউদ্দিন পরিচালিত ‘তোমার আমার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বাংলা চলচ্চিত্রে তাঁর অভিষেক ঘটে।

মাসব্যাপী বাংলা চলচ্চিত্র ঐতিহ্যের ওপর সেমিনার কর্মসূচির অংশ হিসেবে সম্প্রতি ‘সুদক্ষ অভিনেতা আনোয়ার হোসেন: জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গবেষক ইসমত জেরিন। আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন চলচ্চিত্র গবেষক, লেখক ও শিক্ষক জনাব অনুপম হায়াৎ, বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক জনাব আজিজুর রহমান, বিশিষ্ট সাংবাদিক জনাব রফিকুজ্জামান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. ফাহমিদা আক্তার ।

প্রথম দিকে খলনায়ক চরিত্রে অভিনয় করলেও পরবর্তীতে তিনি চরিত্রাভিনেতা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। ১৯৬৭ সালে খান আতাউর রহমানের পরিচালনায় নবাব সিরাজউদ্দৌলা চলচ্চিত্রে নাম ভূমিকায় দুর্দান্ত অভিনয়ের কারণে তৎকালীন সারা পাকিস্তানে ‘মুকুটহীন নবাব’ উপাধি লাভ করেন। স্কুল জীবন থেকেই অভিনয়ের প্রতি আগ্রহ থেকে অভিনয় শুরু করেন।

আনোয়ার হোসেন ৫২ বছরের অভিনয় জীবনে প্রায় পাঁচ শতাধিক ছবিতে অভিনয় করেন। লাঠিয়াল চলচ্চিত্রে প্রাণবন্ত, বলিষ্ঠ ও বাস্তবধর্মী অভিনয় করার জন্য ১৯৭৫ সালে প্রথম শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন তিনি। তাঁর অনবদ্য অভিনয় শিল্প দক্ষতায় মানুষকে কাঁদিয়েছেন, নৈতিকতা-মূল্যবোধকে উজ্জীবিত করেছেন। বাংলা চলচ্চিত্রের নতুন এক অনবদ্য রুপ দান করেছেন এই সুদক্ষ অভিনেতা।