১৯ মার্চ ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অভিনয়ে ব্যস্ত তাসকিন

 অভিনয়ে ব্যস্ত তাসকিন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গান আর অভিনয়ের জন্য ছেলেবেলায় নতুন কুঁড়ি প্রতিযোগিতায় পুরস্কার জিতে নেন। বাংলাদেশ টেলিভিশনের বেশ কয়েকটি নাটকে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেছেন। ১৯৯৫ সালে ‘হৃদয় আমার’ চলচ্চিত্রে আমিন খানের ছোটবেলার চরিত্রেও অভিনয় করেছিলেন। পড়াশোনা করতে অস্ট্রেলিয়ায় চলে যান ২০০২ সালে। সেখানে স্নাতক করেন ফরেনসিক সায়েন্সে। এরপর ভর্তি হন টিএএফই এনএসডব্লিউতে বিজনেস ম্যানেজমেন্ট বিষয় স্নাতকোত্তর করতে। এরপর ডিপ্লোমার জন্য ভর্তি হন বিজনেস এ্যাডমিন বিষয়ে চার্লস স্টার্ট ইউনিভার্সিটিতে। ছবি আঁকা, গান লেখা, সুর ও গান গাওয়াও তার গুণের তালিকায় আছে। সেখানে পড়াশোনার ফাঁকে একটি ব্যান্ড গড়ে তোলেন। নাম ‘সিয়ারসি’। ব্যান্ডের মূল কণ্ঠশিল্পী ছিলেন তিনি। সেই তাসকিন রহমান এখন অভিনেতা। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘যদি একদিন’। ছবিতে একজন জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। চলচ্চিত্রে তাহসান, শ্রাবন্তী কিংবা ছোট্ট রাইসার পাশাপাশি তাসকিনের চরিত্রটি এগিয়ে আছে অনেকের বিবেচনায়। ‘বয়ফ্রেন্ড’ নামে তাঁর আরেকটি চলচ্চিত্রে শিগগিরই মুক্তি পাবে। তিনি থাকেন অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। ‘ঢাকা এ্যাটাক’ চলচ্চিত্রে নেতিবাচক অভিনয় করে রাতারাতি তারকা হয়ে যান। এরপর থেকেই ঢাকার চলচ্চিত্রে নিয়মিত হয়ে যান তিনি। অভিনয়ের নেশায় পড়ে অস্ট্রেলিয়ায় একটি সরকারী প্রতিষ্ঠানে অপরাধ তত্ত্বাবধায়ক বিষয়ক বিশেষকের (ক্রাইম মনিটরিং এ্যানালিস্ট) চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন। ছবি আঁকাতেও পিছিয়ে নেই এই অভিনেতা। এখনো অবসরে নিয়মিত ছবি আঁকেন। এর আগে সিডনিতে নিজের আঁকা জলরঙের ছবি নিয়ে তিনটি একক প্রদর্শনী করেছেন তাসকিন।

তিনি বলেন, অভিনয়ের কারণে গানে ছেদ পড়লেও ছবি আঁকা চালিয়ে যাচ্ছি। এটা থামাতে পারি না। তাসকিন কলকাতার নায়ক জিতের সঙ্গে ‘সুলতান: দ্য সেভিয়্যর’ চলচ্চিত্রে খলনায়ক চরিত্রে অভিনয় করেন। বাংলাদেশ ও কলকাতায় চলচ্চিত্রটি মুক্তির পর তাঁকে নিয়ে তেমন একটা আলোচনা হয়নি। এরপর খলনায়ক থেকে বেরিয়ে এসে যদি একদিন ও বয়ফ্রেন্ড ছবিতে ভিন্ন ধরনের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য কোমর বেঁধে নেমে পড়েন তিনি। এখন অস্ট্রেলিয়ার ওই সরকারী দফতরের সঙ্গে চুক্তিভিত্তিক কাজ করছেন। বলতে গেলে ফুল টাইম অভিনেতা আর অবসরে চাকরিজীবী। তাসকিন বলেন, এখন অভিনয়ই আমার মূল কাজ। অভিনয়ের ফাঁকে চুক্তিতে চাকরি করব। বাংলাদেশে এসে অভিনয় করে বছরে তিন মাস সময় পেলেই ওখানে কাজ করতে পারব। ‘ঢাকা এ্যাটাক চলচ্চিত্রের পর শুধু পরিচালক ছাড়া পুরো টিম নিয়েই মিশন এক্সট্রিম তৈরি হচ্ছে। এবার ছবিটি পরিচালনা করছেন ফয়সাল আহমেদ। আগামী ২০ মার্চ চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু“হবে। এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন তাসকিন রহমান যথারীতি এবারও খলনায়কের চরিত্রে। তাসকিন জানান, তার এবারের চরিত্রটির পরিসর বড়, অনেক বেশি রহস্যঘেরা। তাসকিন বললেন, বেশ কিছুদিন ধরে চরিত্রটির জন্য প্রস্তুত হচ্ছেন। কাজ করছেন নিজের লুক, অভিনয়ের ধরন নিয়ে।