২০ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চার নম্বরে যখন তখন যে কাউকে নামানো যায় না ॥ গম্ভীর

চার নম্বরে যখন তখন যে কাউকে নামানো যায় না ॥ গম্ভীর

অনলাইন ডেস্ক ॥ বিশ্বকাপের আগে চার নম্বরে কে নামবেন, তা নিয়ে অনিশ্চয়তার জন্য জাতীয় দলের প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী ও অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে একহাত নিলেন গৌতম গম্ভীর। তিনি সাফ বলেছেন, “বিশ্বকাপে ব্যাটিং অর্ডার জমাট করার জন্য চার নম্বরে কে নামবে, এটা আগেই ঠিক করে ফেলা উচিত ছিল। আর সেই ব্যাটসম্যানের উপর পূর্ণ ভরসা দেখানো জরুরি ছিল।”

প্রাক্তন ক্রিকেটার মানতে পারছেন না অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সদ্যসমাপ্ত একদিনের সিরিজে প্রথম তিন ম্যাচের পর অম্বাতি রায়ুডুর বাদ পড়াও। গম্ভীর মনে করছেন রায়ুডুর উপর আরও ভরসা রাখা উচিত ছিল ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের। অতীতে ফর্মে না থাকা মহেন্দ্র সিংহ ধোনি ও শিখর ধাওয়ানের উপর যেমন আস্থা দেখানো হয়েছিল, রায়ুডুর ক্ষেত্রেও তা করা উচিত ছিল বলে মনে করছেন বাঁ-হাতি ওপেনার।

গম্ভীরের কথায়, “অতীতেও তো ধোনি-শিখরের উপর ভরসা রাখা হয়েছিল। গত বছর যেমন ধোনির পাশে ছিল দল। এমনকী, শিখরের পাশেও দাঁড়ানো হয়েছিল। একদিনের ফরম্যাটে রায়ুডুর গড় কিন্তু প্রায় ৫০। আর ও কোনও ভুল করেনি। ব্যর্থতা অঙ্গাঙ্গী ভাবে জড়িয়ে রয়েছে খেলার সঙ্গে। কই, অন্য কোনও ক্রিকেটারকে তো একটা-দুটো ব্যর্থতার পর বাদ দেওয়া হয়নি।”

বিরাট কোহালি ও রবি শাস্ত্রী ব্যাটিং অর্ডারে নমনীয়তার কথা বলেছেন। কিন্তু গম্ভীর চাইছেন স্থায়ী ব্যাটিং অর্ডার। তাঁর মতে বেশি পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও বদল দলে অনিশ্চয়তা আমদানি করে। তিনি বলেছেন, “এতদিনে তো কে চার নম্বরে নামবেন, তা ঠিক হয়ে যাওয়া উচিত ছিল। ২০১১ বিশ্বকাপে চার নম্বরে কোহলি নেমেছিল। যাঁকেই চার নম্বরে নামার উপযুক্ত বলে মনে করা হোক না কেন, তাঁর প্রতি যেন ধৈর্য দেখানো হয়। এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ স্লট। চার নম্বরে যখন তখন যে কাউকে নামানো যায় না। কারণ, তিন ও চার নম্বর ব্যাটসম্যানই মিডল অর্ডারের প্রধান অঙ্গ।”

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা