২২ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেবাচিম হাসপাতালে নেই অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র ॥ ঝুঁকি

শেবাচিম হাসপাতালে নেই অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র ॥ ঝুঁকি

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ দীর্ঘ ৫০ বছরেও দক্ষিণাঞ্চলের সর্ববৃহত সরকারী চিকিৎসা সেবা কেন্দ্র বরিশাল শেরে বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে স্থাপন করা হয়নি অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র। ফলে চরম ঝুঁকির মুখে হাসপাতালের কয়েক হাজার রোগী-স্বজন, ডাক্তার, নার্সসহ কর্মরত চিকিৎসক ও স্টাফ।

দক্ষিণাঞ্চলের ১১ জেলার ভরসাস্থল এই হাসপাতালে প্রতিবছর কোটি কোটি টাকার যন্ত্রপাতি ক্রয় করা হলেও নিরাপত্তার জন্য আজও ক্রয় করা হয়নি অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র। সচেতন নগরবাসীর অভিযোগ, শুধু উদাসিনাতার কারণেই এই অত্যাবশকীয় যন্ত্রটি ক্রয়ে উদ্যোগ নেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের। হাসপাতালের রোগী ও স্বজনরা অনতিবিলম্বে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র স্থাপনেরর দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য মন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

বরিশাল ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মোঃ ফারুক হোসেন বলেন, যেকোনো প্রতিষ্ঠানে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র থাকাটা বাধ্যতামূলক। এছাড়া শেবাচিম হাসপাতাল একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। যেখানে হাজার হাজার মানুষের আনাগোনা থাকে। সেখানে অবশ্যই অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র থাকা বাঞ্চনীয়। এতে মানুষের জান ও মাল দুই-ই রক্ষা পাবে। এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়েছে। তারাও আমাদের ডেকে তাদের অবস্থান থেকে আমাদের জ্ঞাত করেছেন।

বরিশাল নগর উন্নয়ন অধিদপ্তরের সিনিয়র পরিকল্পনাবিদ মোঃ আসাদুজ্জামান জানান, যেখানে প্রচুর লোকের সমাগম সেখানে অবশ্যই অগ্নিনির্বাপকের জরুরি। মানুষের জান-মালের নিরাপত্তার স্বার্থেই এটা আগে থাকা উচিত ছিলো। হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ বাকির হোসেন জানান, সম্প্রতি সময়ে ঢাকার কয়েকটি হাসপাতালে অগ্নিকান্ডের পর আমরাও তৎপর হয়েছি। ইতোমধ্যে গণপূর্ত বিভাগকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। তারা সেগুলো ঢাকায় পাঠিয়েছে। তিনি বলেন, হাসপাতালে যে বৈদ্যুতিক তার রয়েছে তা ৫০ বছরের পুরাতন। সেগুলোও পরিবর্তনের জন্য বলা হয়েছে। এমনকি ফায়ার সার্ভিস এনে হাসপাতাল দেখানো হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা খুবই তৎপর রয়েছি। জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান বলেন, এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের জানানো হবে। পাশাপাশি আগামী স্বাস্থ্যসেবা কমিটির মিটিংয়ে বিষয়টি উপস্থাপন করা হবে।