২৩ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

২৫ বিজেপি নেতার পদত্যাগ, দলের জন্য বিপত্তি

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে গত কয়েক দিনে বিজেপির অন্তত ২৫ নেতা পদত্যাগ করেছেন এবং এতে দলটি বিপত্তিতে পড়েছে। অরুণাচল প্রদেশে বুধবার দলের সাধারণ সম্পাদক জারপুম গ্যামবিন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুমার ওয়াআইআইও পর্যটনমন্ত্রী জারকার গ্যামলিন ও ৬ আইন প্রণেতাসহ কমপক্ষে ১৮ বিজেপি নেতা পদত্যাগ করেছেন। ১১ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গে অনুষ্ঠিত হচ্ছে রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। এ নির্বাচনে দল থেকে মনোনয়ন না পেয়ে তারা পদত্যাগ করেছেন। এরা সবাই বিজেপির গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমার ন্যাশনাল পিপলস পার্টিতে (এনপিপি) যোগ দিয়েছেন। এনপিপি এবার এককভাবে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিয়েছে। বিজেপি উত্তরাঞ্চলে মাত্র দুটি জোট গঠনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে। এমনকি কনরাড সাংমার এনপিপিও সিকিমের এসকেএমসহ বিজেপির অনেক আঞ্চলিক জোট নির্বাচন সামনে রেখে দলটিকে বিপত্তিকর পরিস্থিতিতে ফেলে দিয়েছেন। ওয়াআইআই, জারকার ও জারপুম ছাড়াও বিজেপি আইনপ্রণেতা থাংওয়াং ওয়াংহাম, তাপুক তাকু, পানি তারাম, পানখা বাজ, ওয়াবলিং লোয়ানদং ও কারদো নাইয়িগিয়র ও সাবেক মন্ত্রী টিসেরিং জুরমেও পদত্যাগ করেছেন। এনপিপিকে এখন রাজ্যের ৬০ সদস্য বিশিষ্ট বিধানসভায় কমপক্ষে ৩০ থেকে ৪০টি আসনে জয়লাভের জন্য চেষ্টা করতে হবে। এনপিপির সিনিয়র নেতা টমাস সাংমা বলেছেন, এ সংখ্যক আসন পেলে আমরা আমাদের সরকার গঠন করব। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুমার ওয়াআইআই ইতোমধ্যে বংশ রাজনীতি চর্চার অভিযোগ এনেছেন বিজেপির বিরুদ্ধে। তিনি বলেন, বিজেপি সঠিক পথে থাকলে আমরা পদত্যাগ করতাম না। দলের শীর্ষস্থানীয় নেতৃত্ব বিজেপির পক্ষে বলেছেন, দেশ প্রথম, এরপর দল এবং তারপর ব্যক্তি। কিন্তু বাস্তবে তারা এর বিরোধী চর্চা করেছেন। তারা বংশ রাজনীতির বিরুদ্ধে কংগ্রেসের সমালোচনা করেন। কিন্তু অরুণাচল প্রদেশের দিকে তাকালে দেখা যায়, মুখ্যমন্ত্রীর পরিবারের ৩ জন সদস্য মনোনয়ন পেয়েছেন। গ্যামলিন বলেন, তিনি পদত্যাগ করতেন না যদি দল আগাম তাকে অবহিত করত যে, ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য তাকে মনোনয়ন দেয়া হবে না। তিনি বলেন, আমার সামনে দুটো বিষয় ছিল। -এনডিটিভি

নির্বাচিত সংবাদ