২৩ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘কেসারি’ শ্বাসরুদ্ধকর ঘটনার বিবরণ

  • অনন্য রেজা করিম

বলিউডে অনেকদিন থেকেই বায়োপিক নির্মাণের হুজুগ চলছে। ঐতিহাসিক সত্য কোন ঘটনা অথবা বাস্তব জীবনের আলোড়ন সৃষ্টিকারী ঘটনানির্ভর সিনেমাগুলো দর্শক প্রিয়তা পাচ্ছে অধিক ক্ষেত্রে। বায়োপিকে অভিনয় করে দর্শক-সমালোচকদের কাছে প্রশংসিত হওয়াসহ এবং সেরা অভিনেতা-অভিনেত্রী হিসেবে এ্যাওয়ার্ড পাওয়া যায়। এ কারণে বলিউড তারকারা তেমন চিরত্রে অভিনয়ে বিশেষ আগ্রহ প্রকাশ করেন। সম্প্রতি কয়েক বছরে আমরা বলিউডের অনেকগুলো সাড়া জাগানো বায়োপিক রুপালি পর্দায় দেখেছি, এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য- ‘প্যাডম্যান,‘মনিকার্নিকা’ ‘দ্য কুইন অব ঝাঁসি’, উরি : দ্য সার্জিক্যাল এ্যাটাক, ‘রাজি’, ‘পরমাণু’, ‘দ্য এ্যাক্সিডেন্টাল,’ প্রাইম মিনিস্টার ‘থ্যাকরে,’ ‘ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি,’ ‘মান্টো’, ‘গোল্ড’, ‘পদ্মাবত’, প্রভৃতি। সাধারণত ঐতিহাসিক কোন আলোচিত রাজনৈতিক ঘটনা অথবা তেমন কোন স্মরণীয় চরিত্র কিংবা কোন সাড়া জাগানো ক্রীড়া তারকা, সাহিত্যিক, চিত্র তারকা, বিখ্যাত কোন ব্যক্তিত্বকে নিয়েই বলিউডের বায়োপিকগুলো নির্মিত হয়েছে। এ মুহূর্তে নির্মাণের তালিকায় রয়েছে বেশকিছু বলিউড বায়োপিক। এই সময় মুক্তি পাচ্ছে বায়োপিক ধাঁচের আরও একটি হিন্দী সিনেমা ‘কেসারি’। ভারতীয় ইতিহাসে সবচেয়ে দুঃসাহসী যুদ্ধের মধ্যে অন্যতম একটি সারাগারহি যুদ্ধ সংঘটিত হয় ১৮৯৭ সালে। তখন ব্রিটিশদের ঔপনিবেশিক শাসনের আওতায় চলে এসেছে সারা ভারত। ব্রিটিশ সৈন্যরা তখন আফগানিস্তান দখলে নেয়ার চেষ্টা শুরু করেছে। উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশ এলাকা সারাগারহি দুর্গটি ছিল বেশ দুর্ভেদ্য এবং দুর্গম এলাকায়। ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনী নতুন সৃষ্ট, শিখ রেজিমেন্টটি তখন সবার মনোযোগ আকর্ষণ করেছে তাদের কর্তব্যপরায়ণতা ও অসীম সাহসিকতার কারণে। শিখ রেজিমেন্টের ইশার সিং ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে বিদ্রোহী রাগী সৈন্য হিসেবে পরিচিত। ইশার সিং তার ব্রিটিশ সেনা অফিসারদের অন্যায় নির্দেশ অমান্য করতেও দ্বিধা করে না। তখন মাত্র ২১ জন শিখ সৈন্য নিয়ে ইশার তার সারাগারহি দুর্গ রক্ষায় এসে সঙ্গে দশ হাজার আফগান সৈন্যের মোকাবেলা করেছিলেন। নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও তারা জীবনবাজি রেখে লড়াই করেছিলেন। তাদের দুঃসাহসী যুদ্ধের ঘটনা ইতিহাসে উজ্জ্বল স্মরণীয় একটি অধ্যায় হয়ে আছে। দেশের জন্য তাদের চরম আত্মত্যাগ দুঃসাহসী যুদ্ধে অবতীর্ণ হওয়ার চমকপ্রদ ঘটনাবলী নিয়ে নির্মিত হয়েছে কেসারি সিনেমাটি। সারাগারহি যুদ্ধের ঐতিহাসিক ঘটনাটি সম্পর্কে অনেকেই তেমন অবগত নন। বিশেষ করে নতুন প্রজন্ম এই গৌরবদীপ্ত দুঃসাহসী যুদ্ধের কথা জানে না। তাদের অজানা এই ঐতিহাসিক যুদ্ধের কাহিনী অবহিত করতে কেসারি ছবিটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এ ছবির মূল ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অক্ষয় কুমার। শিখ রেজিমেন্টের দুঃসাহসী হাবিলদার ইশার সিংয়ের চরিত্রে দীর্ঘ শ্মশ্রুম-িত মাথায় পাগরি মোড়ানো গেটআপে পর্দায় হাজির হচ্ছেন। তারা বিশেষ এ লুক নিয়ে ইতোমধ্যে দর্শক মনে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। অক্ষয় কুমার আজকাল জটিল চ্যালেঞ্জিং সব ব্যতিক্রমধর্মী রোলে পর্দায় উপস্থিত হয়ে চমক সৃষ্টি করছেন। ‘কেসারি’ ছবিতে প্রথমবারের মতো অক্ষয় কুমারের বিপরীতে অভিনয় করেছেন বলিউডের নতুন প্রজন্মের অভিনেত্রী পরিনীতি চোপড়া। এ ছাড়া পরিনীতির অভিনীত চরিত্রটি তেমন বড় না হলেও স্বল্প সময়ে পর্দায় উপস্থিতি দর্শকদের নজর কাড়বেন ধারণা করা যায়। পরিনীতি ‘কেসারি’ ছবিতে ইশার সিংয়ের স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন। প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার কাজিন সিস্টার হিসেবে তার আলাদা পরিচিতি ছিল। শুরুর দিকে একজন সম্ভাবনায়ম আগুয়ান অভিনেত্রী হিসেবে তাকে যেভাবে এগোতে দেখা যায় এরপর সম্প্রতি গত কয়েক বছরে তার পথ চলায় কেমন যেন ভাটার ভাব লক্ষ্য করা যায়। যদিও তার অভিনীতি গোলমাল এগেইন বক্স অফিসে খুব ভাল ব্যবসা করেছে, তার পরও যেন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু থেকে অকেনটা দূরে তার বর্তমান অবস্থান। সুন্দরী, প্রাণবন্ত, গ্ল্যামারাস হওয়ার পাশাপাশি একজন উচ্চ শিক্ষিত মেধাবী অভিনেত্রী এবং সুগায়িকা হিসেবে বলিউডে তার যে খ্যাতি পরিচিতি ছড়িয়েছিল তা ক্রমেই যেন ম্লান হয়ে এসেছে। নাহ্ পরিনীতি চোপড়া বলিউড থেকে হারিয়ে কিংবা নিঃশেষ হয়ে যাননি। এর মাঝে বেশকিছু নতুন সিনেমায় অভিনয়ও করেছে যার মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য সিনেমা ‘কেসারি’ মুক্তি পাচ্ছে এ সপ্তাহে। যেখানে তাকে প্রথমবারের মতো সিনিয়র একজন সুপারস্টার অভিনেতা অক্ষয় কুমারের বিপরীতে দেখা যাবে। ব্রিটিশ শাসনামলের পটভূমিকায় ১৮৯৭ সালে সংঘটিত উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত প্রদেশ এলাকার একটি দুর্গ রক্ষায় শিখ রেজিমেন্টের একজন দুর্ধর্ষ দুঃসাহসী সৈনিক হাবিলদার ইশার সিংয়ের বীরত্বপূর্ণ যুদ্ধের গল্প নিয়ে নির্মিত বায়োপিক ধাঁচের ছবিটিতে ছোট্ট একটি রোলে পরিনীতি চোপড়াকে দেখা যাবে। ইশার সিংরূপী অক্ষয় কুমারের স্ত্রীর ভূমিকায় সাদামাটা একজন তরুণী গৃহবধূ হিসেবে পর্দায় আসছেন ৩০ বছর বয়সী এই তরুণী অভিনেত্রী। পর্দায় তাকে খুব বেশি সময়ের জন্য দেখা যাবে না যদিও কিন্তু তার পরও পরিনীতি কেসারি ছবিতে অভিনয় করতে পেরে দারুণ খুশি। ছবিটিতে অভিনয়ের প্রস্তাব পেতেই সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে যান তিনি। এ ছবিতে অভিনয়ের জন্য দর্শক আমাকে অনেক অনেক দিন ধরে মনে রাখবে, এটাই আমার বড় প্রাপ্তি, বলেন পরিনীতি। এ বছর তার অভিনীত আরও বেশ কয়েকটি ছবি সন্দীপ আউর পিঙ্কি ফেরার, ‘জাবারিয়া জোড়ি’, ছবিতে দেখা যাবে।’