২৬ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মুসলমানদের পাশে গোটা নিউজিল্যান্ড ॥ জেসিন্ডা

মুসলমানদের পাশে গোটা নিউজিল্যান্ড  ॥ জেসিন্ডা

অনলাইন ডেস্ক ॥ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার এক সপ্তাহ পর আজ আল নূর মসজিদে জুমা নামায আদায় করেছেন হাজার হাজার মুসল্লি। ওই হামলায় শোক প্রকাশ করে মসজিদের কাছে হ্যাগলি পার্কে কয়েক হাজার মানুষ সমবেত হন। সেখানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডার্নও।

নিউজিল্যান্ডে বসবাসরত মুসলমানদের প্রতি সংহতি জানাতে আজ (শুক্রবার) দুপুর দেড়টার দিকে সকল প্রচারমাধ্যমে জোহরের আজান প্রচার করা হল। রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন এবং রেডিওতে সরাসরি জুমার নামাজও সম্প্রচার করা হয়েছে। একইসঙ্গে রাষ্ট্রীয়ভাবে হতাহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দুই মিনিট নীরবতাও পালন করেছে নিউজিল্যান্ডের মানুষ। এমনকি রেডিও, টেলিভিশনেও দুই মিনিট সম্প্রচার বন্ধ রাখা হয়।

নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের খবরে বলা হয়, জুমার নামাজের সময় হ্যাগলি পার্কের সমাবেশে জড়ো হয়েছিল প্রায় দশ হাজার মানুষ। মুসলমান রীতিতে কালো কাপড়ে মাথা ঢেকে প্রধানমন্ত্রী আরডার্নও সেখানে উপস্থিত ছিলেন প্রায় আধা ঘণ্টা। নামাজে আসা মুসলমানদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “নবী মুহাম্মদ (সা.) বলেছেন, পারস্পরিক ভালোবাসা ও সৌহার্দ্য-সম্প্রীতির ক্ষেত্রে বিশ্বাসীরা (মুমিন) সবাই যেন একটি দেহের মতো। দেহের একটি অঙ্গ অসুস্থ হলে পুরো শরীরই যন্ত্রণায় ব্যথায় কাতর হয়ে পড়ে।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “নিউজিল্যান্ডবাসী আপনাদের মতোই শোকাহত। আমরা ঐক্যবদ্ধ।”

‘আমাদের হৃদয় ভেঙেছে, কিন্তু আমরা ভেঙে পড়ব না’

জুমার নামাজের ইমামতি করেন জামাল ফৌদা। সহানুভূতি প্রকাশের জন্য তিনি আরডানকে ধন্যবাদ দেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, “বন্দুকধারী বিশ্বের কোটি কোটি মানুষের হৃদয় ভেঙে দিয়েছে। আজ একই জায়গা থেকে তাকিয়ে মানুষের ভালোবাসা ও সহানুভূতি দেখতে পাচ্ছি। আমাদের হৃদয় ভেঙেছে, কিন্তু আমরা ভেঙে পড়ব না। আমরা বেঁচে আছি, আমরা একসঙ্গে আছি। আমাদের মধ্যে বিভক্তি আনতে দেব না কাউকে।”

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে জামাল ফৌদা বলেন, এটা বিশ্বনেতাদের জন্য একটা শিক্ষা। হিজাব পরে আমাদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ ও পরিবারগুলোর প্রতি আপনার সহানুভূতির জন্য ধন্যবাদ।

তিনি বলেন, ইসলামবিদ্বেষের মাধ্যমে মুসলমানদের মানবিক অধিকার কেড়ে নেয়া হচ্ছে। কাজেই ঘৃণা প্রচার ও ভয়ের রাজনীতি বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ১৫ মার্চ নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নুর ও লিনউড মসজিদে এক উগ্র খ্রিস্টান জঙ্গির হামলায় ৫০ জন মুসল্লি নিহত। আহত হন অন্তত ৪৮ জন। নিহতদের মধ্যে বাংলাদেশের ৫ জন রয়েছেন।#