১৯ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বরিশালে বাস থ্রি হুইলার সংঘর্ষে নিহত ৬

  • অন্যত্র স্কুলছাত্রসহ হত ২

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ বানারীপাড়া-বরিশাল সড়কের গড়িয়ারপাড়ের তেঁতুলতলা নামকস্থানে শুক্রবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে যাত্রীবাহী বাস ও থ্রি-হুইলার সংঘর্ষে বিএম কলেজ ছাত্রী, চালকসহ পাঁচযাত্রী নিহত হয়েছে। এই ঘটনায় আহত হয়েছে শিশুসহ অপর ছয় যাত্রী। আহতদের শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বরিশাল সদর ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার ইউনুস আলী জানান, নিহতরা হলেন- ঝালকাঠী জেলা সদরের বাসিন্দা ও বরিশাল সরকারী ব্রজমোহন (বিএম) কলেজের মাস্টার্স গণিত প্রথম বর্ষের ছাত্রী শিলা হালদার (২৪), আলফা চালক নগরীর কাশিপুর গণপাড়া এলাকার বাসিন্দা ইদ্রিস খানের পুত্র সোহেল খান (২৫), বাকেরগঞ্জের ইউনুস সিকদারের পুত্র ও নগরীর নথুল্লাবাদ এলাকার বাসিন্দা রং মিস্ত্রি মানিক সিকদার (৪০), ২৯নং ওয়ার্ডের কাশিপুর এলাকার বাসিন্দা ইনসাফ আলীর পুত্র অটোরিক্সাচালক খোকন (৩৫) এবং ৫০ বছর বয়সের অজ্ঞাতনামা এক নারী।

হতাহতদের উদ্ধারকারী ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের স্টেশন অফিসার আরও জানান, থ্রি-হুইলার আলফাটি যাত্রী নিয়ে বানারীপাড়া থেকে বরিশালের উদ্দেশে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে গড়িয়ারপাড় এলাকার তেঁতুলতলা নামক স্থানে বানারীপাড়াগামী ‘দুর্জয় পরিবহন’ নামের একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে থ্রি-হুইলারের মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে মাহেন্দ্রাটি দুমড়ে মুচড়ে রাস্তার পাশে পরে দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে ঘটনাস্থলেই যাত্রী কলেজ ছাত্রী শিলার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে আসলে জরুরী বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক মানিক ও খোকনকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থ্রি-হুইলারের চালক সোহেল ও ৫০ বছর বয়সের অজ্ঞাতনামা নারী মারা যায়।

এ দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত মাহিন্দ্রা যাত্রী দুলাল হাওলাদার (৩৫), তন্নি আক্তার (১৭), শিশু তাইয়ুম (৭), তার মা পারভীন বেগম (৩০), সুমন (২৫) ও সাত বছর বয়সের আরও এক শিশুকে শেবাচিম হাসপাতালের ভর্তি করা হয়েছে। এরমধ্যে শিশু তাইয়ুম ও অজ্ঞাতনামা শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

বরিশাল মেট্রোপলিটন এয়ারপোর্ট থানার ওসি আব্দুর রহমান মুকুল জানান, দুর্ঘটনায় কবলিত বাসটি রাস্তার ওপরে পরে থাকায় বরিশাল-বানারীপাড়া-স্বরূপকাঠী সড়কে প্রায় আধাঘণ্টা সকল ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। পরে ফায়ার সার্ভিসের সহায়তায় বাসটি উদ্ধার করা হলে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। তবে বাস চালাককে খুঁজে পাওয়া যায়নি। দুর্ঘটনা কবলিত বাস ও মাহেন্দ্রা পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

প্রাইভেটকারের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত ॥ অপরদিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের উজিরপুর উপজেলার মেজর জলিল সেতুর ওপরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রাইভেটকারের ধাক্কায় দীপ কর্মকার (১২) নামের তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। নিহত দীপ উজিরপুর পৌর এলাকার বাসিন্দা গোপাল কর্মকারের পুত্র ও কমলাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিল। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যায় সেতুর উপরে দীপ ও তার সহোদর পার্থ ঘোরাঘুরি করছিল। হঠাৎ বরিশাল থেকে ঢাকাগামী দ্রুতগতির একটি প্রাইভেটকার দীপকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে দীপ গুরুত্বরভাবে আহত হলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উজিরপুর উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

নিজস্ব সংবাদদাতা মাগুরা থেকে জানান, শুক্রবার সকালে মাগুরায় যশোর ভায়া আড়পাড়া সড়কের সদর উপজেলার মঘিরঢাল নামক স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় আবুল হোসেন (৩৬) নামে এক এ্যাম্বুলেন্স চালক নিহত হযেছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও চারজন। নিহত আবুল হোসেনর বাড়ি গোপালগঞ্জে। সে খুলনায় থেকে চালকের চাকরি করতো। মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের জরুরী বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ঢাকা থেকে খুলনাগামী একটি এ্যাম্বুলেন্স মাগুরা যশোর ভায়া আড়পাড়া সড়কের মাগুরা সদর উপজেলার মঘিরঢাল নামকস্থানে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে গেলে চালক আবুল হোসেনসহ ৫ জন আহত হয়। তাদের মাগুরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে আনা হলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক আবুল হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত চার জনকে হাসপাতালের ভর্তি করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।