২৩ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৮ মাস বেতন নেই হিলি স্থলবন্দরে কর্মরত আনসারদের

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ হিলি স্থলবন্দরে কর্মরত এবং নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার সদস্যদের গত ৮ মাস ধরে বেতন বন্ধ রয়েছে। এতে পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন তারা। স্থানীয় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পদ্ধতিগত ত্রুটির কারণে তাদের বেতন বন্ধ রয়েছে।

জানা গেছে, সীমান্তের শূন্যরেখা থেকে শুরু করে বন্দরের ভেতরে প্রবেশ পর্যন্ত সড়কে ১০ জন আনসার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন। ভারত থেকে পণ্যবাহী ট্রাক দেশে প্রবেশের পর ট্রাকগুলো যেন অন্য কোথাও না যায় বা কেউ যেন সেগুলো কোথাও না নিয়ে যেতে পারে, সে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তারা। এছাড়াও বন্দর এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বেও তারা পালন করেন। হিলি স্থলবন্দরে দায়িত্বে আনসারদের প্লাটুন কমান্ডার রাহেদুল ইসলাম বলেন, ‘বন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে¡ আমরা ১০ জন আনসার সদস্য কর্মরত রয়েছি। আমরা আমাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে যাচ্ছি। গত জুলাই মাস থেকে আমাদের বেতন-ভাতা বন্ধ রয়েছে। আগে কাস্টমসের সকল কর্মকর্তার বেতনের সঙ্গে আমাদের বেতন আসত। কিন্তু এখন আমাদের খাতটি আলাদা করে দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এরপর থেকে বিভিন্ন সমস্যার কারণে আমাদের বেতন বন্ধ রয়েছে। আমরা বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘পরিবার-পরিজন নিয়ে আমরা বর্তমানে চরম দুর্দশায় রয়েছি। হাকিমপুর উপজেলা আনসার ভিডিপির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজিনা পারভীন বলেন, ‘আমি যতটুকু জেনেছি শুধু হিলি স্থলবন্দরে নয়, সারাদেশের বিভিন্ন স্থলবন্দরে কর্মরত আনসার সদস্যদের বেশ কিছুদিন ধরে বেতন বন্ধ রয়েছে। এটি কাস্টমসের বিষয়।’ তিনি বলেন, ‘তাদের নাকি এবারে বরাদ্দটা অনলাইনের মাধ্যমে হয়েছে এবং সেখানে কোডগুলো সংশোধন করা হয়েছে। আগে যেভাবে যে কোডে বেতন দেয়া হতো, সেটি পরিবর্তন করে ডিজিটাল নম্বর করা হয়েছে। এর কারণে নাকি তাদের বরাদ্দ আসেনি। এ বিষয় রংপুর বিভাগীয় কমিশনার আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন যে, এ মাসের মধ্যেই বিষয়টির সমাধান হয়ে যাবে। তবে এই মাসের মধ্যে যদি তাদের বেতন ভাতা না দেয়া হয়, তাহলে বন্দর থেকে আমরা আনসার সদস্যদের প্রত্যাহার করে নিয়ে আসার জন্য তাদের কাছে চিঠি পাঠাব।’ হিলি স্থল শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা মোফিজুর রহমান বলেন, ‘আনসার সদস্যদের বেতন না হওয়ার বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক।