১৮ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইসিসির স্বীকৃতি পেয়ে উচ্ছ্বসিত রুমানা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) বর্ষসেরা মহিলা টি২০ দলে জায়গা পেয়েছিলেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার রুমানা আহমেদ। গত বছর সেরা টি২০ পারফর্মারদের নিয়ে ওই দলটি গড়া হয়েছিল। এবার আইসিসি সেই স্বীকৃতি দিয়েছে রুমানাকে। ‘আইসিসি টি২০ টিম অব দ্য ইয়ার’ লেখা একটি ক্যাপ হাতে পেয়েছেন তিনি। আর এই স্বীকৃতির পর দারুণ খুশি রুমানা। জানিয়েছেন জাতীয় দলের হয়ে খেলে বাংলাদেশের জন্য আরও গর্ব বয়ে আনতে চান তিনি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০১৮ সালে মেয়েদের বর্ষসেরা ওয়ানডে ও টি২০ দল বছরের শুরুতেই ঘোষণা করেছিল আইসিসি। ওয়ানডে দলে বাংলাদেশের কারও সুযোগ হয়নি, তবে টি২০ দলে জায়গা করে নেন রুমানা। আর সে জন্য আইসিসি স্মারক উপহার হিসেবে বর্ষসেরা একাদশে থাকা প্রতিটি খেলোয়াড়কেই একটি করে ‘ক্যাপ’ উপহার দিয়েছে। রবিবার উপহারটি হাতে পেয়ে দারুণ খুশি রুমানা। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই অনেক ভাল লাগছে, অনেক খুশি আমি। বর্ষসেরা দলের সদস্য হলে আইসিসির পক্ষ থেকে একটা পুরস্কার দেয়া হয় জানতাম। তাই এই ক্যাপটা পাওয়ার জন্য বেশ উৎসুক হয়ে ছিলাম।’ গত বছর বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দল নিজেদের ইতিহাসে সেরা সাফল্য পেয়েছিল। জুন মাসে এশিয়া কাপে পাকিস্তান ও ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিল প্রথমবার। এরপর শিরোপা লড়াইয়ে শক্তিশালী ভারতকে আবারও হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। আইসিসি স্বীকৃত কোন বড় টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার প্রথম ঘটনা বাংলাদেশের ক্রিকেটে। মহিলাদের সেই এশিয়া কাপে বাংলাদেশকে শিরোপা জেতানোর টুর্নামেন্টে রুমানা ছিলেন দারুণ উজ্জ্বল। ৬ ম্যাচে নেন ১০ উইকেট। আর ফাইনালে হয়েছিলেন ম্যাচসেরা।

ব্যাট হাতেও সবসময় উজ্জ্বল রুমানা অবশ্য তার লেগস্পিনই বেশি কার্যকর। মেয়েদের ওয়ানডেতে বাংলাদেশের একমাত্র হ্যাটট্রিকের গৌরবটাও তার। গত বছর ২৪ টি২০ খেলে ৩০ উইকেট আর ২২৯ রান করে বাংলাদেশের সেরা অলরাউন্ডার ছিলেন তিনি। ২০১৮ টি২০ বিশ্বকাপে উইকেট শিকারেরুতালিকায় রুমানা ছিলেন দুইয়ে। আর সে কারণেই বিশ্বসেরা একাদশে ঠাঁই পেয়েছিলেন। এবার ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে এ নারী অলরাউন্ডার বলেন, ‘২০১৯ সালের বেশ কিছু সময় চলে গেছে। এ বছর আন্তর্জাতিক ম্যাচ আমরা তেমন খেলিনি।

আশা করব এই বছরে যেন বেশ কয়েকটা আন্তর্জাতিক ম্যাচ ও সিরিজ খেলতে পারি। জাতীয় দলকে নিয়ে আমার বেশ কিছু স্বপ্ন আছে। সে স্বপ্নগুলো পূরণ করার জন্য আমাদের নিয়মিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে হবে। সে লক্ষ্যেই নিজেকে প্রস্তুত রাখছি সবসময়।’