২৩ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভিকারুননিসায় অধ্যক্ষ নিয়োগে বাধা কাটল

  • রিট খারিজ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নামী প্রতিষ্ঠান ভিকারুননিসা নূন স্কুল এ্যান্ড কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগ বন্ধে দায়ের করা আলোচিত রিট খারিজ করে দিয়েছে হাইকোর্ট। সরকারী আদেশ গোপন রেখে আবেদন ও কারণে সোমবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দিয়েছে। এদিকে আদালত রিট খারিজ করলেও দেশের স্বনামধন্য এ প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ নিয়োগ বন্ধে সক্রিয় হয়েছে কোচিং ও অবৈধ ভর্তি বাণিজ্যে জড়িত একটি সিন্ডিকেট। ঘটনায় উদ্বিগ্ন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

এর আগে ‘অভিভাবক ফোরামের সভাপতি’র পরিচয়ে এ কে এম খোরশেদ আলম নামে এক ব্যক্তি ভিকারুননিসা নূন স্কুল এ্যান্ড কলেজে অধ্যক্ষ নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট দায়ের করেছিলেন। রিটের বিষয়ে ২০ মার্চ ও সোমবারের শুনানির পর হাইকোর্ট তা খারিজ করে দিয়েছে। ওই স্কুলের অভিভাবক ফোরামের সভাপতি একেএম খোরশেদ আলমের করা রিট আবেদনের পক্ষে আদালতে শুনানি করেন আইনজীবী ইমদাদুল হক। রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল মোঃ আল আমিন সরকার শুনানি করেন। ভিকারুননিসার পক্ষে আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

পরে আল আমিন সরকার বলেন, ভিকারুননিসা স্কুল এ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নিয়োগের জন্য গত ৮ মার্চ দেয়া বিজ্ঞাপ্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদনটি করা হয়েছিল। তবে সরকারের যে আদেশের কথা উল্লেখ করে রিট আবেদন করা হয়েছে, সেটি অনেক আগেই অকার্যকর হয়ে গেছে। পরে অধ্যক্ষ নিয়োগের পক্ষে সরকার আদেশ জারি করে তিন মাসের মধ্যে নিয়োগ দিতেও নির্দেশ দিয়েছে। কিন্তু রিটকারী অধ্যক্ষ নিয়োগের পক্ষে জারি করা সরকারী সেই আদেশকে এড়িয়ে গেছেন। তাই আদালত রিট আবেদনটি খারিজ করেছে। ফলে ৮ মার্চের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী অধ্যক্ষ নিয়োগ এখন আর কোন বাধা নেই।

আইনজীবী আরও বলেন, রিটকারী নিজের পরিচয় হিসেবে ভিকারুননিসা নূন স্কুল এ্যান্ড কলেজের ‘অভিভাবক ফোরামের সভাপতি’র পরিচয় দিয়েছেন। কিন্তু আইনত এ ধরনের প্রতিষ্ঠানের কোন বৈধতা নেই। আবার অভিভাবক পরিচয় বললেও সেখানে সন্তান কোন শ্রেণীতে পড়ে কিংবা নাম কি সে কথাও উল্লেখ নেই।