২৫ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আর্জেন্টিনার ব্যর্থতায় ম্যারাডোনার ক্ষোভ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। ১৯৭৮ সালে প্রথমবার বিশ্বকাপের শিরোপা উঁচিয়ে ধরা দেশটি সর্বশেষ স্বপ্নের এই টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হয় ৩৩ বছর আগে! অবিশ্বাস্যই মনে হতে পারে। তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে শিরোপা বঞ্চিত আর্জেন্টাইনরা। অথচ, মেসি-এ্যাগুয়েরো-ডি মারিয়াদের মতো খেলোয়াড়রা খেলেন এই দলে। কিন্তু সর্বশেষ রাশিয়া বিশ্বকাপেও শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিতে হয় আর্জেন্টিনাকে।

রাশিয়া বিশ্বকাপের পরও দুই ম্যাচে হারের স্বাদ পেয়েছে আর্জেন্টিনা। একটি ব্রাজিলের বিপক্ষে। অপরটি সর্বশেষ ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে। স্পেনের মাদ্রিদের ওই ম্যাচে মেসি ফিরলেও জয়ের দেখা পায়নি আলবিসেলেস্তেরা। আর্জেন্টিনার এমন পারফর্মেন্সে হতাশ দেশটির সাবেক তারকা ফুটবলার ডিয়াগো ম্যারাডোনা। তিনি মনে করেন, ২০১৯ সালে এসে এই দলের আকাশি-নীল জার্সি পরার যোগ্যতা নেই।

১৯৮৬ বিশ্বকাপজয়ী ম্যারাডোনাকে প্রশ্ন করা হয়, ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ম্যাচটা তিনি দেখেছেন কিনা। সর্বকালের অন্যতম সেরা এই তারকার উত্তর, ‘আমি ভয়ঙ্কর সিনেমা দেখতে পছন্দ করি না। আমি এখনও জানি না অযোগ্য লোক কি করে আর্জেন্টিনার কোচ হয়। তারা আবার ভেনেজুয়েলাকে হারাতেও মাঠে নেমে পড়ে। এটা আমাকে খুব আঘাত করেছে। আমি হৃদয় থেকে একজন আর্জেন্টাইন। অস্কার রুগিরি, গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা, কানিজিয়ারা যে জার্সি পরে খেলেছেন সেই জার্সি পরার যোগ্যতা এই প্রজন্মের আর্জেন্টিনা ফুটবলাররা রাখে না।’

২০১৪ সালের ব্রাজিল বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছিল আর্জেন্টিনা। দারুণ খেলেও শিরোপা জিততে পারেনি সেবার। শিরোপা জয়ের লড়াইয়ে জার্মানির কাছে হেরে যায় আর্জেন্টিনা। সেই আর্জেন্টিনা ২০১৮ বিশ্বকাপে দ্বিতীয় রাউন্ডে ফ্রান্সের বিপক্ষে হেরে বিদায় নেয়। বিশ্বকাপ পরবর্তী তরুণ দল গড়তে উঠে পড়ে লেগেছেন অন্তর্বর্তীকালীন কোচ থেকে পূর্ণাঙ্গ কোচ হওয়া লিওনেল স্কালোনি। কিন্তু এখনও তেমন ভাল কিছু দেখাতে পারেননি তিনি। ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে হারটাই যেন তার প্রমাণ। এই স্কালোনির অধীনেই আর্জেন্টিনা দল ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত কোপা আমেরিকা খেলবে। তার আগে আর্জেন্টিনার কোচ হিসেবে বড় বড় নাম শোনা গেছে। কিন্তু কাউকে নিয়োগ দিতে পারেনি আলবিসেলেস্তেরা। কোপা আমেরিকায় তাই এই আর্জেন্টিনাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখা ঠিক হবে না বলে সতর্ক করেছেন ম্যারাডোনা। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি আর্জেন্টিনার মানুষের জন্য দুঃখিত। তারা এখনও (তাপিয়া) মিথুককে বিশ্বাস করে।’

রাশিয়া বিশ্বকাপের পর ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে প্রত্যাবর্তন ঘটে লিওনেল মেসির। ওই ম্যাচেই কুঁচকিতে চোট পেয়ে দল থেকে চিটকে যান এলএম টেন। এ নিয়ে গত শুক্রবার আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে বার্সিলোনাও টুইট করে জানায়, ‘চোটের কারণে পরের আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে মেসি খেলবেন না।’ আর এই ঘোষণার পরই প্রশ্ন তুলেছে মরক্কো। মেসি কেন তাদের বিপক্ষে খেলবেন না, সে বিষয়ে আর্জেন্টিনা ফুটবল ফেডারেশনের কাছে ব্যাখ্যাও চেয়েছে মরক্কো ফেডারেশন। এক বিবৃতিতে মরক্কো ফুটবল ফেডারেশন বলছে, তারা এরইমধ্যে আয়োজক সংস্থাকে সব জানিয়েছে, আর চুক্তি অনুযায়ী মরক্কোর বিপক্ষে সেরা একাদশই খেলানোর কথা আর্জেন্টিনার। ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে চোট পাওয়ার পর প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মারাত্মক কিছু নয়। একটু বিশ্রাম নিলেই ঠিক হয়ে যাবে। মেসির চোট নিয়ে যাবতীয় চিন্তা বার্সিলোনার। এপ্রিলের শুরুতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ। তারপর লা লিগার কয়েকটি গুরুতপূর্ণ ম্যাচ।

নির্বাচিত সংবাদ