১৩ এপ্রিল ২০১৯

ডিএল মেথডে ম্যাচ জিতল জিম্বাবুয়ে

ডিএল মেথডে ম্যাচ জিতল জিম্বাবুয়ে

অনলাইন ডেস্ক ॥ বৃষ্টি আর আলোকস্বল্পতায় ‘পন্ড’ জিম্বাবুয়ে ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের ম্যাচের উত্তেজনা। বৃষ্টির বাধায় শুরুতে ম্যাচ বন্ধ হয়। এরপর আলোকস্বল্পতায় ম্যাচ শেষ হতে পারেনি। ডিএল মেথডে শেষ হাসিটা হাসে জিম্বাবুয়ে। টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে চার ম্যাচ সিরিজে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে জিম্বাবুয়ে।

হারারেতে আগে ব্যাটিং করে সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩৫ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৬৯ রান। বৃষ্টিতে ম্যাচ নেমে আসে ৩৫ ওভারে। বৃষ্টি আইনে জিম্বাবুয়ে ৩৫ ওভারে ২১০ রানের লক্ষ্য পায়। জবাবে ৩২ ওভারে ১৮৫ রান তোলে স্বাগতিকরা। এরপর আলোকস্বল্পতায় ম্যাচ বন্ধ হয়। ডিএল মেথডে মাত্র ৪ রানে এগিয়ে থেকে জিম্বাবুয়ে রোমাঞ্চকর ম্যাচ জিতে নেয়।

শাইমান আনোয়ার ও গুলাম সাব্বেরের ব্যাটে সংযুক্ত আরব আমিরাত ভালো লক্ষ্যের পথে এগিয়ে যাচ্ছিল। কিন্তু বৃষ্টির বাধায় আটকে যান তারা। ২৯ ওভারে তাদের রান ছিল ৩ উইকেটে ১২২। বেরসিক বৃষ্টিতে সোয়া দুই ঘন্টা ম্যাচ বন্ধ ছিল। বৃষ্টির পর খেলা হয় মাত্র ৬ ওভার।

শেষ ৬ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৪৭ রান যোগ করে সফরকারীরা। সর্বোচ্চ ৭২ রান করেন শাইমান। ৫৬ রান আসে গুলামের ব্যাট থেকে। এছাড়া দুই অঙ্কের দেখা পেয়েছেন অধিনায়ক মোহাম্মদ নাভেদ। বল হাতে জিম্বাবুয়ের সেরা কাইল জারভিস। মাত্র ৭ ওভারে ১ মেডেনে ১৭ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। ৩ উইকেট পেয়েছেন ট্রিপানো।

স্বাগতিকদের লক্ষ্য নাগালেই ছিল। ৩৫ ওভারে রান লাগত ২১০। যদিও তাদের শুরুটা ভালো হয়নি। ৯২ রান তুলতেই ৪ উইকেট তারা। সলোমান মিরে (১৪), ক্রেইগ আরভিন (১৩), শন উইলিয়ামস (১৭) ও সিকান্দার রাজা (১১) দ্রুত সাজঘরে ফেরেন।

পঞ্চম উইকেটে পাল্টে যায় জিম্বাবুয়ে। অধিনায়ক পিটার মুর ৩৩ বলে ৪৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংস উপহার দেন। তিনটি ছক্কায় বল পাঠান মাঠের বাইরে। তবে জিম্বাবুয়ের ইনিংসের আসল মেরামত করেছেন ওপেনার চাকাভা। ৭৮ রান করেন এ ব্যাটসম্যান। দুজনের জুটিতে ৮০ বলে আসে ৯৩ রান। চাকাভা ১০১ বলে ৫ বাউন্ডারিতে সাজান নিজের ইনিংসটি। মুরের ইনিংসটি সাজানো ছিল ১ চার ও ৩ ছক্কায়। বল হাতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের হয়ে ২টি উইকেট পেয়েছেন রুহান মোস্তফা।

৩২ ওভারে জিম্বাবুয়ের রান ছিল ৪ উইকেটে ১৮৫। এরপর আলোকস্বল্পতায় ম্যাচ বন্ধ হয়। শেষ ৩ ওভারে সফরকারীদের দরকার ছিল ২৫ রান। কিন্তু রান রেটে তারা ছিল এগিয়ে। ডিএল মেথড অনুযায়ী ৪ রানে এগিয়ে থেকে জিম্বাবুয়ে জিতে নেয় ম্যাচ। ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন পিটার মুর।