২০ এপ্রিল ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজধানীতে এক নারীকে কুপিয়ে হত্যা, বজ্রপাতে শ্রমিকের মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর মোহাম্মদপুরে এক নারীকে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। এদিকে ডেমরায় বজ্রপাতে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে বাড্ডায় মাটি চাপা পড়ে আরেক শ্রমিক মারা গেছেন। শনিবার সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, মোহাম্মদপুরে অজ্ঞাত (৩০) এক নারীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। শনিবার সকালে পুলিশ ঢাকা উদ্যানের ৪ নম্বর সড়কের ৭ নম্বর টিনশেড বাসার একটি কক্ষ থেকে ওই নারী রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠায়। মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) শরিফুল ইসলাম জানান, নিহত ওই নারীর দুই পায়ে গোড়ালির ওপরে রগ কাটা, বাম হাতে কব্জির রগ কাটা, মাথার ওপর অংশ থেতলানো অবস্থায় পাওয়া যায়। ধারণা করা হচ্ছে, পরিকল্পিতভাবে ওই নারীকে নির্মমভাবে নির্যাতন চালিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। শরিফুল ইসলাম জানান, শনিবার সকালে অন্য একটি কক্ষের এক মহিলা বাথরুমে গিয়ে দেখে একটি চাকু বাঁকা হয়ে পড়ে আছে। এই চাকু কার? তার খোঁজ নিতে গিয়ে নতুন ভাড়াটিয়ার কক্ষের জানালা দিয়ে দেখে রক্তাক্ত অবস্থায় মহিলা পড়ে আছে। পরে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জি জি বিশ্বাস জানান, চারদিন আগে ঢাকা উদ্যানের হাউজিং এলাকার ৪ নম্বর রোডের একটি টিনশেট বাসায় স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে ভাড়া নেয় তারা। ধারণা করা হচ্ছে, স্বামী পরিচয়দানকারী ব্যক্তিটি ওই নারীকে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়। ওসি জানান, নিহত নারীর নাম-ঠিকানা এখনও জানা যায়নি। ওই নারীর আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করা হয়েছে। জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমে তার পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

দুই শ্রমিকের মৃত্যু ॥ স্থানীয়রা জানান, শনিবার দুপুরে ডেমরার সারুলিয়ায় বজ্রপাতে রেজাউল ইসলাম (২০) নামের এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। ডেমরা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ সেলিম জানান, ডেমরার সারুলিয়া এলাকার একটি রুলিং মিলের শ্রমিক রেজাউল। তিনি জানান, দুপুর ১টার দিকে ওই মিলের পাশেই একটি ফাঁকা জায়গায় গোসল করছিলেন রেজাউল। এমন সময় হঠাৎ আকাশে বজ্রপাত হয়। এতে সেখানেই অচেতন হয়ে পড়েন তিনি। পরে সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে একই সময় বাড্ডার আফতাবনগর এলাকার ওয়াসার লাইনে কাজ করার সময় মাটি চাপা পড়ে সেলিম মিয়া (২৫) নামে আরেক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের বাবার নাম মৃত আব্দুল জলিল। গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধা জেলায়। তিনি আফতাব নগরে থাকতেন। বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিফুল ইসলাম জানান, দুপুরে আফতাবনগরে রাস্তার পাশের ওয়াসার লাইনে মাটি খুঁড়ে কাজ করছিলেন সেলিম। এ সময় নরম মাটি নিচের দিকে দেবে গেলে সেলিম মাটির নিচে চাপা পড়েন। পরে সেখান থেকে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে দুপুর আড়াইটার দিকে ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগে আনা হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে মৃতদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর বাচ্চু মিয়া জানান।