২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তুরাগে এবার মোটা অঙ্কের নিলাম ৭০ অবৈধ স্থপনা উচ্ছেদ

তুরাগে এবার মোটা অঙ্কের নিলাম ৭০ অবৈধ স্থপনা উচ্ছেদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ তুরাগ পাড়ে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ অভিযানে বুধবার বিরাট অঙ্কের টাকার অবৈধ মালামাল জব্দ করে বিআইডাব্লিটিএ। জব্দকৃত মালামাল নিলামে বিক্রি করা হয়। এতে মোটা অঙ্কের টাকা জমা হয় রাষ্ট্রিয় কোষাগারে। উচ্ছেদ হয় ৭০টি অবৈধ স্থাপনা। এতে অবমুক্ত হয়েছে প্রায় সাড়ে চার একর জায়গা। তুরাগ থানার কামার পাড়ার ভাটুলিয়া এবং পরান মন্ডল টেক এলাকায় এই অভিযান পরিচালিত হয়।

এসময় তুরাগ নদের উভয় পাড় এবং মীরপুর বেড়িবাঁধ রাস্তার পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একহরকৃত জায়গায় অবৈধ দখলদারের কবল থেকে অবমুক্ত করে বিআইডাব্লিটিএর উচ্ছেদ অভিযান টিম। এছাড়া বেশ কয়েকটি বালুর গদি, মাটি, পাথরের গদি সহ একটি গাড়ি নিলামে বিক্রি করে সংস্থাটি। এতে রাষ্ট্রিয় কোষাগারে জমা হয় এক কোটি ২৮ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা। তবে ৭০টি অবৈধ স্থাপনার উচ্ছেদের মধ্যে রয়েছে পাকা দোতলা ভবন তিনটি, একতলা ছয়টি, আধাপাকা নয়টি, টিনসেড ১৩টি, বাউন্ডারি ওয়াল দশটি এবং টিনের ঘর ২৯টি।

অভিযানটি পরিচালনা করেন নির্বাহী হাকিম মো: মোস্তাফিজুর রহমান। নির্দেশনায় ছিলেন বিআইডাব্লিটিএর যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দীন। বিআইডাব্লিটিএর এ পর্যন্ত ২৯ কর্যদিবস উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ০৯ টা হতে উত্তরা ১০ নং সেক্টরের নিকটবর্তী সাহেব আলী মাদ্রাসার পার্শ্ববর্তী তুরাগ নদের তীরে অভিযান চলবে।

এদিকে এক অভিযোগের ভিত্তিতে বুধবার উচ্ছেদ অভিযান শুরুর পূর্বে গোড়ানচট থেকে আশুলিয়া পর্যন্ত ফের জরিফ করা হয়। নির্বাহী হাকিম মো: মোস্তাফিজুরের উপস্থিতিতে জরিপকারী আব্দুল হাই ও আজিজুর রহমান জরিপকার্য পরিচালানা করে। এসময় মাইসা রেডিমিক্স কোম্পানি, এবিসি কোম্পানি ও করিম গ্রুপের জায়গা জরিপ করা হয়। পরে নির্বাহী হাকিম এই ব্যাপারে মন্তব্য করে বলেন, ওই কোম্পানিগুলোর কোন ভবন নদীর সীমানায় পড়ে নি। কিন্তু নদীর তীর ভুমির পাশের জায়গা ব্যবহার করতে হলে বিআইডাব্লিটিএর অনুমোদন লাগে। এতে ওই কোম্পানিগুলোর অনুমোদন থাকলেও অনাপত্তি শর্তের বেশ কয়েকটি শর্ত মানছে না ওই কোম্পানিগুলো বলে জানান তিনি।