২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মাদারীপুরে ৪ স্কুল ছাত্রীকে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা করলেন ইউএনও

মাদারীপুরে ৪ স্কুল ছাত্রীকে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা করলেন ইউএনও

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর ॥ মাদারীপুরে এক দিনে ৪ স্কুল ছাত্রীকে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা করলেন ইউএনও সোহানা নাসরিন। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। শুধু বাল্য বিয়ে বন্ধই করেননি। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে দুই কনের অভিভাবককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। অন্য দুই কনের বাবা মুচলেকা দিয়ে রেহাই পেয়েছে।

জানা গেছে, রাজৈর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহানা নাসরিন গোপন সুত্রে খবর পেয়ে বুধবার বিকেলে রাজৈর উপজেলা পাইকপাড়া ইউনিয়নের নয়াকন্দি কাশিমপুর গ্রামের ফারুক খানের মেয়ে স্থানীয় মাদ্রাসার নবম শ্রেনী ছাত্রী স্মৃতির বিয়ের খবর পেয়ে অভিযান চালান। মেয়ের বিয়ে বন্ধ রাখবে মর্মে মুচলেকা রেখে বাবাকে ছেড়ে দেন। একই দিন ইশিবপুর গ্রামের মজিবর কারিকরের মেয়ে ইশিবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী লিজা আক্তারের বিয়ের দিন ধার্য ছিল। এ বিয়ে বন্ধ করে মুচলেকা রেখে বাবাকে ছেড়ে দেয়া হয়। এদিকে আমগ্রামে মনি মোহন বৈদ্যর মেয়ে নবম শ্রেনীর ছাত্রী তিথীর বিয়ের আয়োজন চলছিল। খবর পেয়ে ইউএনও পুলিশ নিয়ে সেখানে হাজির হয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেন। একই গ্রামের হরিপদ ওঝার মেয়ে দশম শ্রেনীর ছাত্রী দোলা ওঝা‘র বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল। খবর পেয়ে ইউএনও সেখানেও হাজির হয়ে মেয়ে ও মেয়ের বাবাকে আটক করে রাতে উপজেলায় নিয়ে আসে। সেখানে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে বাল্য বিয়ে নিরোধ আইনে উভয় অভিভাবককে ৫ হাজার টাকা করে ১০ হাজার টাকার জরিমানা আদায় করেন। এ সময় মেয়ের ১৮ বছর পার না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না মর্মে মুচলেকা রেখে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।