২৫ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমলাকে নিয়েই বিশ্বকাপ দল প্রোটিয়াদের

মোঃ মামুন রশীদ ॥ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে পারেননি অভিজ্ঞ ওপেনার হাশিম আমলা। ৩৬ বছর বয়সী এ ডানহাতি তার আগে নিজের ফর্মের সঙ্গেও লড়াই করছিলেন। এ কারণে অনেকেই ভেবেছিলেন আসন্ন বিশ্বকাপে আমলার খেলা নিয়ে সংশয় আছে। কিন্তু সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা (সিএসএ) বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দল ঘোষণা করেছে আমলাকে নিয়েই। ফাফ ডু প্লেসিসের নেতৃত্বে দলটিতে খেলবেন অভিজ্ঞ জেপি ডুমিনিও। তবে জায়গা পাননি রিজা হেনড্রিকস ও ক্রিস মরিস।

বাবার অসুস্থতার কারণে সম্প্রতিই লঙ্কানদের বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজ খেলেননি আমলা। অভিজ্ঞ এ ওপেনার একটা সময় ধারাবাহিকভাবে ব্যাট হাতে দুর্দান্ত খেলেছেন। কিন্তু গত এক বছর ধরে সেভাবে ফর্মে দেখা যায়নি। তাই অনেকে ভেবেছিলেন হয়তো এবারের বিশ্বকাপ খেলা হবে না আমলার। কিন্তু সিএসএ নির্বাচকরা অভিজ্ঞ এ ডানহাতির ওপর আস্থা রেখেছেন। আমলা দলেই আছেন। এছাড়া প্লেসিসকেই অধিনায়ক রাখা হয়েছে। আর বিশ্বকাপের আগে লঙ্কানদের বিপক্ষে দলে ফেরা ডুমিনিও জায়গা পেয়েছেন। দীর্ঘদিন ইনজুরির কারণে দলের বাইরে ছিলেন তিনি। তবে চলমান ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) ফর্মের তুঙ্গে থাকা পেসার ক্রিস মরিস ঠাঁই পাননি ১৫ সদস্যের চূড়ান্ত দলে। এরচেয়ে কাগিসো রাবাদার সঙ্গী হিসেবে এনরিখ নর্টজে ও ইনজুরি কাটিয়ে ওঠা লুঙ্গি এনগিডি, অভিজ্ঞ ডেল স্টেইন ও আন্দিলে ফেলুকোয়াওকে রেখেছেন সিএসএ নির্বাচকরা।

বিশ্বকাপের দল ঘোষণার আগেই অবশ্য বর্তমান নির্বাচকদের প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছিলেন সাবেক নির্বাচক জোবার্ট স্ট্রাইডোম। তিনি দাবি করেছিলেন বর্তমান প্রোটিয়া দলে ম্যাচ জেতানো কোন খেলোয়াড়ই নেই এবং দল গঠনে ব্যাপকভাবে রাজনৈতিক প্রভাব রয়েছে। তিনি মনে করেন, ল্যান্স ক্লুজনার, জাস্টিন কেম্প কিংবা এলবি মরকেলের মতো ক্রিকেটাররা না থাকায় আসন্ন বিশ্বকাপে প্রোটিয়াদের ভাল কিছু করা অসম্ভব। অথচ এই স্ট্রাইডোম ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিসকে দল থেকে বাদ দিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন। তখন অনেকেই বলেছিলেন সিএসএ নির্বাচকরা রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় দল ঘোষণা করে। সেই স্ট্রাইডোমের এমন মন্তব্যে অবশ্য বর্তমানে সিএসএ নীতি নির্ধারকরা কর্ণপাতই করেননি। বৃহস্পতিবার দল দেয়ার পর সেটি নিয়ে তেমন কোন আলোচনাও হয়নি। এবার প্রোটিয়া দলে উইকেটরক্ষক হিসেবে আছেন ফর্মের তুঙ্গে থাকা কুইন্টন ডি কক। তার বিকল্প হিসেবে রাখা হয়েছে ভ্যান ডার ডাসেনকে। সেই সঙ্গে বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান ডেভিড মিলারেরও যোগ্যতা আছেন কিপিং করার। দলে দুইজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার রেখেছে প্রোটিয়ারা। লেগ স্পিনার ইমরান তাহিরের সঙ্গে আছেন তাবরেজ শামসি। একমাত্র অলরাউন্ডার মূলত ফেলুকোয়াও। তবে দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি নিয়মিতই স্পিন করে থাকেন অভিজ্ঞ ডুমিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপ স্কোয়াড ॥ ফাফ ডু প্লেসিস (অধিনায়ক), হাশিম আমলা, কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), এইডেন মার্করাম, কাগিসো রাবাদা, আন্দিলে ফেলুকোয়াও, লুঙ্গি এনগিডি, এনরিখ নর্টজে, ডেল স্টেইন, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস, ইমরান তাহির, তাবরেজ শামসি, জেপি ডুমিনি, ডেভিড মিলার ও ভ্যান ডার ডাসেন।