২১ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চলতি মাসেই কিম-পুতিন বৈঠক

  চলতি মাসেই কিম-পুতিন বৈঠক

অনলাইন ডেস্ক ॥ উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন চলতি মাসেই রাশিয়ায় গিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে জানিয়েছে ক্রেমলিন। বৃহস্পতিবার এক ঘোষণায় এ বৈঠকের কথা জানালেও কোথায় ও কখন দুই নেতা একত্রিত হবেন তা জানায়নি তারা।

২০১১ সালে কিমের ক্ষমতায় বসার পর উত্তর কোরিয়া-রাশিয়ার মধ্যে এটাই প্রথম শীর্ষ বৈঠক হতে যাচ্ছে, জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। কোরীয় উপদ্বীপে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে পিয়ংইয়ংয়ের বাড়তে থাকা দূরত্বের মধ্যেই পুতিনের সঙ্গে কিমের বৈঠকের এ ঘোষণা এল। বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়া বলেছে, তারা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় আর মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী মাইক পম্পেওকে চায় না। পম্পেওর জায়গায় ‘আরও পরিণত’ কাউকে আলোচনায় দেখার প্রত্যাশাও ব্যক্ত করেছে পিয়ংইয়ং।

এই দাবির আগে আগেই দেশটি নতুন একটি ‘কৌশলগত নিয়ন্ত্রিত অস্ত্রের’ সফল পরীক্ষা চালানোরও ঘোষণা দিয়েছিল। ফেব্রুয়ারিতে ভিয়েতনামে ট্রাম্প-কিম বৈঠক ভেস্তে যাওয়ার পর উত্তর কোরিয়ার এটাই প্রথম কোনো অস্ত্রের পরীক্ষা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক রুশ কূটনীতিকের বরাত দিয়ে বুধবার ক্রেমলিনঘনিষ্ঠ সংবাদমাধ্যম ইজভেস্তিয়া ২৬-২৭ এপ্রিল পুতিনের চীন সফরের আগে চলতি সপ্তাহেই রাশিয়ার ভ্লাদিভোস্তকে উত্তর কোরিয়া ও রাশিয়ার দুই শীর্ষ নেতার বৈঠক হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছিল। কিমের গোপনীয়তার বিষয়টি বিবেচনা করে স্থান ও সময় বদলে যাওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়নি তারা। বৈঠক আয়োজনে পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে কয়েক মাস ধরেই আলোচনা চলছিল বলে জানিয়েছে মস্কো। কিম জং উনের আগে তার বাবা কিম জং ইল ২০১১ সালের অগাস্টে রাশিয়ার তখনকার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদভের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। ইলের মৃত্যুর পর ওই বছরই কিম উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা হিসেবে দায়িত্বভার নেন।

পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করতে কিম কীভাবে রাশিয়া যাবেন, সে সম্বন্ধে কোনো ধারণা পাওয়া যায়নি। বুধবার উত্তর কোরিয়ার কর্মকর্তা কিম চ্যাং সনকে ভ্লাদিভোস্তকের প্যাসিফিক পোর্ট সিটির ট্রেন স্টেশনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে দেখা গেছে বলে জানিয়েছে রুশ বার্তা সংস্থা রিয়া। এদিকে বৃহস্পতিবার মস্কোতে রুশ উপ পররাষ্ট্র মন্ত্রী ইগর মরগুলোভের সঙ্গে উত্তর কোরীয় বিষয়ক বিশেষ মার্কিন দূত স্টিফেন বিগেনের বৈঠক হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার ‘চূড়ান্ত, যাচাইযোগ্য পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ’ বিষয়ে তাদের মধ্যে গঠনমূলক আলোচনা হয়েছে বলেও জানিয়েছে মস্কোর মার্কিন দূতাবাস।