২৫ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় ইসলামী মনীষীদের পদাঙ্ক অনুসরণের বিকল্প নেই

  • বক্তাদের অভিমত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় ইসলামী মনীষীদের পদাঙ্ক অনুসরণের বিকল্প নেই। যুগ যুগ ধরে চর্চা করা ইসলামী আচার-অনুষ্ঠানের বিকৃতি ঘটিয়ে শান্তিপ্রিয় মুসলমানদের ইমান-আকিদা চ্যুত করার অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে পথহারা মাযহাব বিরোধী মহল। এরা কথিত ইসলামপন্থী উপদল। শুক্রবার বিএমএ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ইমামে আযম কনফারেন্সে বক্তারা এসব কথা বলেন।

মুুফতি ওবাইদুল নঈমীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ছিলেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আবদুর রশিদ, ড. আবদুল্লাহ্ আল মারুফ শাহ, ড. একে এম মাহবুবুর রহমান, অধ্যক্ষ আবু জাফর মুহাম্মদ হেলাল উদ্দীন, মুফতি মাহমুদুল হাসান আলকাদেরী, মুফতি জসিম উদ্দীন আজহারী, মুফতি হাফেজ মুনিরুজ্জামান আলকাদেরী, মুফতি গিয়াস উদ্দীন তহেরী ও মুফতি মাঈনুদ্দীন হেলাল। সঞ্চালনায় ছিলেন উপাধ্যক্ষ মুফতি আবুল কাশেম ফজলুল হক, অধ্যাপক মাসুম বাকি বিল্লাহ।

ইমামে আ’যম ও আ’লা হযরত গবেষণা পরিষদ আয়োজিত সম্মেলনে বক্তারা বলেন, জঙ্গীবাদ মোকাবেলায় ইসলামী মনীষীদের পদাঙ্ক অনুসরণের বিকল্প নেই। ক্রমবর্ধমান কঠিন ও জটিল মাছালা-মাছায়েল ও সূক্ষ্ম আইনী জটিলতা নিরসনে ইমাম আ’যমের ঐতিহাসিক রচনাগুলো প্রণিধানযোগ্য। ইসলামের ইতিহাস, ঐতিহ্য রক্ষার্থে যিনি অকুতোভয় ভূমিকা রেখেছেন তিনি হলেন নোমান বিন সাবিত (রাহ.)। তারা আরও বলেন, ইমামে আ’যম শতাধিক কিতাব লিখে বৈশি^ক সমস্যা সমাধানে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন বলেই ইসলাম মাযহাবিক কুটির ওপর দ-ায়মান। যুগ যুগ ধরে চর্চিত ইসলামী আচার-অনুষ্ঠানের বিকৃতি ঘটিয়ে মুসলমানদের ইমান-আকিদা চ্যুত করার অপপ্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে পথহারা মাযহাব বিরোধী মহল। সালাফি তথা আহলে হাদিস নামে কথিত ইসলামপন্থী উপদল বিশুদ্ধ হাদিসগুলোর বিষয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করে মুসলমানদের বিভ্রান্ত ও ইমানহারা করছে। এহেন অবস্থায় ইমাম আ’যমের জ্ঞানের চর্চা করার কোন বিকল্প নেই।