২০ এপ্রিল ২০১৯

মাগুরায় অবৈধ সুদ কারবারির বিচার দাবীতে বিক্ষোভ

মাগুরায় অবৈধ সুদ কারবারির বিচার দাবীতে বিক্ষোভ

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাগুরা ॥ অবৈধ সুদ কারবারির বিচার দাবীতে আজ শনিবার বিকালে মাগুরা সদর উপজেলার রামদারগাতি, গোয়ালবাথান, রাজাপুর, দিঘলকান্দি, জোকা, গোপালগ্রামসহ ১০ গ্রামের মানুষ রাস্তায় নেমে মানববন্ধন, বিক্ষোভ করেছে। সুদের ফাঁদে পড়ে সুব্রত নামে এক সবজি বিক্রেতার মৃত্যুর ঘটনায় বিক্ষুব্ধ হয়ে তারা আজ শনিবার রাস্তায় নেমে এ বিক্ষোভ করে।

বিক্ষোভকারিরা জানান, নায়েব আলী নামে এক ব্যক্তি মাসিক শতকারা ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ হারে সুদে বিভিন্ন দরিদ্র লোককে টাকা দিয়ে ফাঁদে ফেলেছে। মানুষের আর্থিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে সে টাকা লগ্নি করে। পরে প্রতি সপ্তাহে শতকরা ১০ থেকে ১২ টাকা হরে সুদ নেয়। সুদের টাকা দিতে না পারায় গত বৃহস্পতিবার রামদারগাতি গ্রামের সুব্রত প্রামাণিক নামে এক ব্যক্তি ক্ষোভে আত্মহত্যা করে। টাকা দিতে না পারলে বিষপান করে মরে যা-এমন কথা বলে। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সুব্রত নায়েবের কাছে বিষ কেনার জন্য ১০০ টাকা নেয়। যা দিয়ে সত্য সত্য বিষপান করে আত্মহত্যা করে সুব্রত। এছাড়া নায়েব আলীর সুদে টাকা দিতে না পেরে ডাবলু মোল্যা, সঞ্জয় দাসসহ অন্তত ২৫ জন বসতবাড়ি ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে।

রামদারগাতির জাহাঙ্গীর, ইলিয়াসসহ আরো অনেক ভুক্তভোগী মিছিল ও বিক্ষোভে সরাসরি অংশ নিয়ে তাদের বক্তব্যে এটির ভয়াবহ সত্যতা প্রকাশ করে। ১০ গ্রামের অন্তত ৫ হাজার মানুষ মানববন্ধন ও বিক্ষোভে অংশ নেয়। এদিকে এ ঘটনায় সদর থানায় এখনো পর্যন্ত মামলা নেয়নি বলে জানিয়েছে ভূক্তভোগী পরিবার ও বিক্ষোভকারিরা। তবে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নায়েবকে আটক করেছে পুলিশ।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম মামলা নেয়ার ব্যাপারে জানান, পোষ্ট মর্টেম রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে। যেহেতু বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন ছাড়া এধরণের সুদ গ্রহন সম্পূর্ণ অবৈধ। সে কারণে নায়েব আলীর বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং আইনে ব্যবস্থা নেয়া হবে।