২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দশদিন নেটের গতি ধীর হতে পারে

বাংলাট্রিবিউন ॥ শনিবার রাত (২০ এপ্রিল) থেকে আগামী ১০ দিন দেশে কখনও কখনও ইন্টারনেটের গতি ধীর হতে পারে। দেশের প্রথম সাবমেরিন কেবলের মেরামত চলাকালে এই সমস্যা হতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল)। বিএসসিসিএল থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, দেশের প্রথম সাবমেরিন কেবলের (সি-মি-উই-৪) কক্সবাজার অংশের প্রথম ও তৃতীয় রিপিটার প্রতিস্থাপনের কাজ চলবে আগামী ১০ দিন। রিপিটার প্রতিস্থাপনকালে কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশনে আন্তর্জাতিক কল ও ইন্টারনেট ডাটা গ্রহণের সার্কিটগুলো বন্ধ থাকবে। ফলে কিছু ক্ষেত্রে ইন্টারনেটের গতি ধীর হতে পারে। তবে এ সময়ে দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল (সি-মি-উই-৫) চালু থাকবে। জানা গেছে, এ সময় দেশের ছয়টি আইটিসিও (ইন্টারন্যাশনাল টেরেস্ট্রিয়াল কেবল) চালু থাকবে। আইটিসিগুলো দিয়ে ভারত থেকে ব্যান্ডউইথ আমদানি করা হয়। ফলে ইন্টারনেট সেবায় বড় কোন ধরনের সমস্যা হবে না। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে দেশের ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবির সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক বলেন, সাবমেরিন কেবলের মেরামত বা রিপিটার প্রতিস্থাপন একটি নিয়মিত কাজ। এটি নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই। আমাদের পর্যাপ্ত ব্যাকআপ আছে। তবে কোথাও কোথাও ল্যাটেন্সি বেড়ে যেতে পারে। পিক টাইমে যদি ব্যাকআপ ঠিকমতো কাজ না করে তাহলে ইন্টারনেটের গতি কিছুটা কমতে পারে। তাতে কাজ করতে কিছুটা বেশি সময় প্রয়োজন হলেও মূল কাজ ততটা বাধাগ্রস্ত হবে না। আগামী ১ মে সাবমেরিন কেবলের মেরামত কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে বলে তিনি জানান। সাবমেরিন কেবল রক্ষণাবেক্ষণের ডাউনটাইমে ব্যাকআপ দেবে বলে জানিয়েছে সামিট কমিউনিকেশন্স। প্রতিষ্ঠানটি থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ১০ দিনের জন্য অপারেটরটির প্রায় ৩০০ জিবিএস ব্যান্ডউইথ সারা দেশে থাকবে। রক্ষণাবেক্ষণের সময় সারা দেশ এ সময়ে ধীরগতির ইন্টারনেট সেবা অনুভব করতে পারে। সামিট কমিউনিকেশন্স লিমিটেড দেশের এই পরিস্থিতির সময় পূর্ণ আপটাইম বজায় রাখতে প্রস্তুত।