১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আজ জিতলেই চ্যাম্পিয়ন আবাহনী

  • প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগ ॥ সুযোগ আছে রূপগঞ্জেরও

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আজ শেষ হচ্ছে ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগ (ডিপিএল)। সুপার লীগের শেষ ম্যাচে আজ বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবকে হারিয়ে দিলেই শেরোপা ধরে রাখবে গত আসরের চ্যাম্পিয়ন আবাহনী লিমিটেড। আগেরদিন শিরোপা জয়ের অন্যতম বাধা হয়ে ওঠা লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জকে ১০২ রানে পর্যুদস্ত করে পয়েন্ট সমান করে ফেলেছে আবাহনী। হেড টু হেড হিসেব সমান হওয়ায় রানরেটে এগিয়ে থাকা আবাহনী আজ জিতলেই তাই চ্যাম্পিয়ন হবে। তবে আবাহনী জিততে না পারলে রূপগঞ্জ যে কোন ব্যবধানে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রাইম ব্যাংককে হারালেই চলবে। তবে উভয় দল হারলেও রানরেটে এগিয়ে থাকায় আবাহনীর ঘরেই উঠবে শিরোপা। এদিকে সুপার লীগে প্রাইম ব্যাংককে ৭ উইকেটে হারিয়ে প্রথম জয়ের মুখ দেখা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব আজ শেষ ম্যাচে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবের মুখোমুখি হবে ফতুল্লায়। দোলেশ্বর ৭ উইকেটে হারিয়েছিল শেখ জামালকে।

ডিপিএলের রবীন লীগ শেষে পয়েন্টের দিক থেকে রূপগঞ্জের চেয়ে ৪ পয়েন্ট পিছিয়ে পড়েছিল আবাহনী। তবে সুপার লীগে আর হারেনি গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু রূপগঞ্জ হেরে যায় শেখ জামালের কাছে। এতে করে পয়েন্টের ব্যবধান আরও কমে আসে। রবিবার বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে তাই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল আবাহনী। জিতলেই শিরোপা জেতার পথ উন্মুক্ত হবে। সেই ম্যাচে তারা আগে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ৩৭৭ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়ে। ডিপিএলের ইতিহাসে এটি কোন দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। গতবার এ ভেন্যুতেই প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে ৪ উইকেটে ৩৯৩ রানের রেকর্ড ইনিংস গড়েছিল আবাহনী। এবার সৌম্য সরকার ৭৯ বলে ১৫ চার, ২ ছক্কায় ১০৬, জহুরুল ইসলাম ৮৩ বলে ৬ চার, ২ ছক্কায় ৭৫, মোহাম্মদ মিঠুন ৩৪ বলে ৭ চার, ২ ছক্কায় অপরাজিত ৬৪, ওয়াসিম জাফর ৩৯ বলে ২ চার, ২ ছক্কায় ৪৬ ও সাব্বির রহমান ২৪ বলে ৪ চারে ৩৩ রান করলে এই বিশাল সংগ্রহ পায় আবাহনী। তাসকিন আহমেদ ৫ ওভারে ৫৭ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট। মুমিনুল হক ৫ ক্যাচ ধরে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে অনন্য এক রেকর্ড গড়েন। জবাবে রূপগঞ্জ ৭ উইকেটে ২৭৫ রানের বেশি করতে পারেনি। ওপেনার মোহাম্মদ নাইম ১৩৫ বলে ১৩ চার, ২ ছক্কায় ১২৩ রানে অপরাজিত থাকেন। কিন্তু বল হাতে দুই উইকেট নেয়া মোহাম্মদ শহীদ ব্যাট হাতেও ৪৭ বলে ৪ চার, ৪ ছক্কায় ৫৩ রান করলেও বাকিরা ছিলেন ব্যর্থ। মেহেদী মিরাজ ৬৫ রানে ৩টি, মাশরাফি ২টি উইকেট নেন। ১০২ রানের জয়ে নেট রানরেটে (+০.৯০৫) এগিয়ে থাকায় রূপগঞ্জের (+০.৪২৫) সমান ২৪ পয়েন্ট নিয়েও শীর্ষে। রবীন লীগে জিতেছিল রূপগঞ্জ, আর সুপার লীগে জিতল আবাহনী। তাই এখন রানরেটে এগিয়ে থাকারাই শিরোপা নিশ্চিত করবে। আজ শেখ জামালকে একই ভেন্যুতে হারাতে পারলেই চ্যাম্পিয়ন আবাহনী। রূপগঞ্জের একমাত্র সুযোগ থাকতে পারে নিজেরা প্রাইম ব্যাংককে হারিয়ে আবাহনীরও হারের প্রত্যাশা করার মধ্যে।

সুপার লীগে টানা তিন জয় পাওয়া শেখ জামালকে অবশেষে থামতে হয়েছে দোলেশ্বরের ওপেনার সাইফ হাসানের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের জন্য। সাইফ ১১৬ বলে ১০ চার, ১১ ছক্কায় ১৪৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দোলেশ্বরকে ৭ উইকেটের জয় এনে দেন। এক ইনিংসে ১১ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড এর আগে বাংলাদেশের মধ্যে লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ছিল মাশরাফি ও সৌম্যের। শেখ জামালের বিপক্ষেই ২০১৬ সালে কলাবাগানের হয়ে ৫১ বলে ১০৪ রান করার ম্যাচে ১১ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড গড়েছিলেন মাশরাফি। গতবার ব্রাদার্সের বিপক্ষে অগ্রণী ব্যাংকের হয়ে ১২৭ বলে ১১ ছক্কায় ১৫৪ রান করার ইনিংসে মাশরাফিকে ছুঁয়েছিলেন সৌম্য। এবার ভাগ বসালেন সাইফ। এছাড়া ফরহাদ হোসেন ৮০ বলে ৭ চার, ৩ ছক্কায় ৭৮ রান করলে মাত্র ৩৮.৩ ওভারে ৩ উইকেটে ২৪৪ রান তুলে জয় পায় দোলেশ্বর। তাইজুল ইসলাম ২ উইকেট নেন। এর আগে ব্যাট করে শেখ জামাল ৪৯.৩ ওভারে গুটিয়ে যায় ২৪৩ রানে। তানবীর হায়দার ৬৩ বলে ৫ চার, ২ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৬৯, রাকিন আহমেদ ৩৮, নুরুল হাসান ৩৬ ও ইমতিয়াজ হোসেন ৩৩ রান করেন। ৩টি করে উইকেট নেন ফরহাদ রেজা ও তাইবুর রহমান। অপর ম্যাচে প্রাইম ব্যাংককে ৭ উইকেটে হারিয়ে সুপার লীগে প্রথম জয় পেয়েছে মোহামেডান। আগে ব্যাট করে প্রাইম ব্যাংক ৪২.২ ওভারে ১৭৪ রানেই গুটিয়ে যায়। অলক কাপালী ৫৫ বলে ৩ চার, ২ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন। সাকলাইন সজীব ৪টি ও সোহাগ গাজী ৩টি উইকেট নেন। জবাবে আব্দুল মজিদের ৭১ বলে ৭ চারে ৫৪ ও রকিবুল হাসানের ৬৮ বলে ৭ চারে অপরাজিত ৫২ রানে ৩৫ ওভারে ৩ উইকেটে ১৭৫ রান তুলে জয় পায় মোহামেডান।

এই মাত্রা পাওয়া