২৩ এপ্রিল ২০১৯

যুবলীগ নেতা শাহীন হত্যায় ৭ জনের যাবজ্জীবন

যুবলীগ নেতা শাহীন হত্যায় ৭ জনের যাবজ্জীবন

অনলাইন রিপোর্টার ॥ পাঁচ বছর আগে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরের যুবলীগ নেতা মো. শাহীন হত্যা মামলায় সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

মঙ্গলবার ঢাকার তিন নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মনির কামাল এ রায় দেন।

কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- রাজা খাঁ, সোহেল চৌকিদার, এমারত চৌকিদার, আওলাদ চৌকিদার, মাসুদ তালুকদার, রনি কাজী ও বাঁধন।

এদের মধ্যে রাজা খাঁ ছাড়া অন্য আসামিরা পলাতক।

যাবজ্জীবনের পাশাপাশি প্রত্যেককে বিশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড ও তা অনাদায়ে আরও দুই মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ১৬ জনকে খালাস দিয়েছেন বিচারক।

দণ্ডিত ও খালাস পাওয়া সবার বাড়ি শ্রীনগরের মগডাল এবং পূর্ব বাঘড়া গ্রামে।

রায়ের বিবরণে বলা হয়, পূর্ব শত্রুতা ও রাজনৈতিক বিরোধের জেরে আসামিরা ২০১৪ সালের ৬ মার্চ সন্ধ্যায় শাহীনের ওপর হামলা চালায়।

ওইদিন শাহীন ঢাকার গুলিস্তান থেকে আরাম পরিবহনের বাসে শ্রীনগরে নিজের বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে আল অমিন বাজারের কাছে বাসটি থামিয়ে আসামিরা পিস্তল ও রামদা নিয়ে তাকে আক্রমণ করে। শাহিনের বুকে-পেটে গুলি করে ও কুপিয়ে জখম করা হয়।

শাহীনকে প্রথমে ফুলতলা রাজ্জাক হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে স্থানান্তর করা হয় ঢাকার মিরপুরের কেয়ার হাসপাতালে। ওই হাসপাতালে ১৫ মার্চে সকালে শাহীন মারা যান।

এ ঘটনায় শাহীনের ফুফু কানন বেগম শ্রীনগর থানায় মামলা করেন।

মামলার বিচারকালে রাষ্ট্রপক্ষে ১৫ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন ট্রাইবুনালে বিশেষ কৌঁসুলি মো. মাহবুবুর রহমান।