২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আগামীকাল ৭কলেজের আবার আন্দোলন

আগামীকাল ৭কলেজের আবার আন্দোলন

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ স্নাতক, স্নাতকোত্তর ও ডিগ্রি পরীক্ষার ফলাফলে গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার কারণ প্রকাশসহ মোট পাঁচ দফা দাবিতে ঢাকার নিলক্ষেত মোড়ে টানা তিনঘন্টা অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১ টা থেকে দুপুর দুইটা পর্যন্ত কর্মসূচি পালন করে শিক্ষার্থীরা। এর আগে সকাল সাড়ে ১০ টায় ঢাকা কলেজের সামনে মানববন্ধন করে মিছিল নিয়ে নিলক্ষেত মোড়ে জড়ো হয় তারা। বিক্ষোভকারীরা কাল বুধবার একই দাবি নিয়ে অবস্তান কর্মসূচি পালন করার ঘোষণা দেয়। শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে ঢাকা কলেজের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী আবু বক্কর বলেন, আগামীকাল (বুধবার) সকাল ১১টায় আবার অবস্থান কর্মসূচি শুরু হবে। সমস্যা সমাধান না হলে এই অবরোধ কর্মসূচী অব্যাহত থাকবে বলে তিনি ঘোষনা দেন।

বিক্ষোভ চলাকালীন শিক্ষার্থীরা ‘গণহারে আর ফেল নয়, যথাযথ রেজাল্ট চাই’, শিক্ষা কোনো পণ্য নয়, শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা নয়’, ‘গণহারে ফেল, ঢাবি তোমার খেল’, ‘বন্ধ করো অনাচার, সাত কলেজের আবদার’ শীর্ষক স্লোগান দেয়।

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হল- পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে ত্রুটিমুক্ত ফলাফল প্রকাশসহ একটি বর্ষের সকল বিভাগের ফলাফল একত্রে প্রকাশ করা; ডিগ্রি, স্নাতক, স্নাতকোত্তর পর্যায়ের সকল বর্ষের ফলাফলে গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার কারণ প্রকাশসহ খাতা পুনঃমূল্যায়ন; সাত কলেজ পরিচালনার জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন; প্রতি মাসে প্রত্যেকটি বিভাগে প্রতি কলেজে দুইদিন করে মোট ১৪ দিন ঢাবি শিক্ষকদের ক্লাস নিতে হবে এবং সেশনজট নিরসনের জন্য একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশসহ ক্রাশ প্রোগ্রাম চালু করা।

কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া ঢাকা কলেজের এক শিক্ষার্থী বলেন, ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের যারা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্ভুক্ত, তারা এখন তৃতীয় বর্ষের ইনকোর্স পরীক্ষা দিচ্ছে। কিন্তু আমরা যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত তার এখনও দ্বিতীয় বষের পরীক্ষা সম্পন্ন করতে পারিনি। এছাড়া প্রথম বর্ষের ফলাফলেও দেখা গেছে গড়ে সবাই ফেল করেছে। আমরা চাই যথাসময়ে পরীক্ষা হোক এবং যথাভাবে পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করা হোক।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ করেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থাকাকালীন সেশনজটে পিষ্ট হয়েছি আমরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আসার পর এই সেশনজট কমবে বলে ধারণা করেছিলাম। কিন্তু উল্টো জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় ঢাবির অধীনে তা আরো বেড়েছে। পরীক্ষার ৯০ দিনের মধ্যে ফলাফল প্রকাশ করতে পারছে না। যা প্রকাশ করছে তা ত্রুটিযুক্ত। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য একাধিকবার আশ্বাস দিলেও তার কিছুই বাস্তবায়ন করতে পারেন নি বলে অভিযোগ করেন শিক্ষার্থী।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি রাজধানী ঢাকার সাতটি সরকারি কলেজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয়। কলেজগুলো হচ্ছে ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ। মূলত সেশনজট কমানোর উদ্দেশ্যে এই অধিভুক্তিকরণ হলেও, শিক্ষার্থীদের দাবি ঢাবির অধীনে আসার পর জট আরো বেড়েছে।

এ পর্যন্ত একাধিকবার আন্দোলন কর্মসূচি পালন করেছে উক্ত কলেজগুলোর শিক্ষার্থীরা।