২১ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কেরানীগঞ্জে যৌতুকের বলি গৃহবধূ ॥ স্বামী গ্রেফতার

নিজস্ব সংবাদদাতা, কেরানীগঞ্জ, ২৪ এপ্রিল ॥ কথা কাটাকাটির জের ধরে কিশোরী স্ত্রী হোসনে আরাকে (১৫) শ্বাসরোধে হত্যা করেছে স্বামী। মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে চুনকুটিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘাতক স্বামীর নাম ইমন (১৯)। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় ইমনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইমন স্ত্রীকে গলা টিপে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। সে আরও জানায়, নিহত বাল্যবধূ অন্তঃসত্ত্বা ছিল। মঙ্গলবার রাতে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ইমন তার স্ত্রীকে গলা চেপে ধরে। এতে তার মৃত্যু হয়। নিহতের বড় বোন জান্নাত জানান, ৯ মাস পূর্বে ইমনের সঙ্গে তার বোনের বিয়ে হয়। দুজনেরই গ্রামের বাড়ি ভোলা জেলা চরফ্যাশন থানাধীন ঘোষেরহাট গ্রামে। বিয়ের পর তারা কেরানীগঞ্জে বাসা ভাড়া নেন। ইমন রাজমিস্ত্রীর কাজ করত। কয়েক মাস যাবত ইমন ব্যবসা করবে বলে শ্বশুরবাড়ি থেকে যৌতুক দাবি করছিল। যৌতুকের টাকা না পেয়ে সে হোসনে আরাকে হত্যা করেছে।

বরিশালে শিক্ষিকা ও শ্রমিকের লাশ

স্টাফ রিপোর্টার বরিশাল থেকে জানান, আগৈলঝাড়া উপজেলার পাকুরিতা গ্রাম থেকে এক স্কুল শিক্ষিকার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত প্রিয়বালা রায় (৪৮) ওই গ্রামের নিরঞ্জন বল্লভের স্ত্রী ও সরবাড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা। পুলিশ জানায়, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাতে থানা পুলিশ দুই সন্তানের জননী শিক্ষিকার রান্নাঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে থানায় ইউডি মামলা দায়েরের পর বুধবার সকালে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যদিকে গৌরনদী পৌরসভার সুন্দরদী মহল্লা থেকে বুধবার সকালে ইমরান বেপারী (২০) নামের এক নির্মাণ শ্রমিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে ওই মহল্লার আবদুল মোতালেব বেপারীর পুত্র। এ ঘটনায় নিহতের ভাই রানা বেপারী বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ দুপুরে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে। জানা গেছে, প্রতিদিনের ন্যায় ইমরান বেপারী মঙ্গলবার সকালে রাজমিস্ত্রির সহযোগী হিসেবে কাজ করতে যায়। সন্ধ্যায় বাড়িতে ফেরার কিছুক্ষণ পর ঘর থেকে বের হয়। রাতে ইমরান বাড়িতে না ফেরায় পরিবারের সদস্যরা খোঁজাখুঁজি করে তার কোন সন্ধান পায়নি। সকালে বসতঘরের পশ্চিম পাশে পেয়ারা গাছের সঙ্গে ইমরানের ঝুলন্ত লাশ দেখে পুলিশকে খবর দেয়া হয়।