২১ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভালুকায় নিরীহ কৃষকের হাজত বাস ॥ অতঃপর...

নিজস্ব সংবাদদাতা, ভালুকা, ময়মনসিংহ, ২৪ এপ্রিল ॥ ভালুকায় পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক না হয়েও মিথ্য মামলায় উপজেলার বিরুনীয়া গ্রামের নিরীহ কৃষক মুসলিম উদ্দিন ম-লের ছেলে মোঃ জালাল উদ্দিন ম-ল (৫০) তিনদিন হাজতবাস করেছেন। এ সংবাদটি পত্রিকায় প্রকাশের পর ২৪ ঘণ্টার মাঝে পল্লী বিদ্যুতের সংযোগ পেলেন ক্ষতিগ্রস্ত ওই কৃষক। জনকণ্ঠ অনলাইনে ‘ভালুকায় পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহক না হয়েও এক ব্যক্তির হাজতবাস’ শিরোনামে ছবিসহ একটি সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বিষয়টিতে পল্লী বিদ্যুত চেয়ারম্যানের দৃষ্টি আকর্ষণ হয়। তিনি সঙ্গে সঙ্গেই ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুত সমিতি-২ এর জিএমকে সরেজমিনে তদন্ত করে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য নির্দেশ দেন। যে জিএম দুপুর বেলা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে একটি মামলার ফটোকপি দেননি তিনি, এজিএম (কম), এজিএম (অর্থ)সহ পল্লী বিদ্যুতের বিভিন্ন লোক নিয়ে জালাল উদ্দিনের বাড়িতে রাতে ছুটে যান। পল্লী বিদ্যুতের জিএম ওই বাড়িতে উপস্থিত হলে স্থানীয় লোকজনের তোপের মুখে পড়েন। পরে জিএম পল্লী বিদ্যুতের পক্ষ থেকে জালাল উদ্দিনের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে তাকে পনের হাজার টাকা আর্থিক সহযোগিতা করেন। জালাল উদ্দিনের বাড়িটি শতভাগ বিদ্যুতায়নের নির্মাণাধীন একটি বিদ্যুত লাইনের আওতায় ছিল। বুধবারের মধ্যে জালাল উদ্দিনসহ ওই এলাকার ৪৬ গ্রাহককে বিদ্যুত সংযোগের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসেন পল্লী বিদ্যুতের জিএম। বিকেল বুধবার ৫টা পর্যন্ত অধিকাংশ ঘরেই বিদ্যুতের মিটার লাগানো হয়ে গেছে। রাতের মধ্যেই পুরো এলাকায় সংযোগ দেয়া হয়ে যাবে বলে এজিএম (অর্থ) বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুত সমিতি-২ (ভালুকা) এর এজিএম (অর্থ) তুহিন রহমান জানান, ভুক্তভোগী ব্যক্তিকে মামলার কপি দিতে জিএমের নিষেধ থাকায় তা দেয়া সম্ভব হয়নি। ওই এলাকায় ৪৬ গ্রাহককে বুধবার রাতের মধ্যে বিদ্যুত সংযোগ দেয়া হচ্ছে।