১৬ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইনজুরি নিয়ে দেশে ফিরে গেলেন স্টেইন

  • কাঁধের চোটে আইপিএল খেলবেন না

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ কাঁধের সমস্যা অনেক আগের। ২০১৬ থেকেই ডান কাঁধের ইনজুরিতে ভুগছেন ৩৫ বছর বয়সী অভিজ্ঞ দক্ষিণ আফ্রিকান ডানহাতি পেসার ডেল স্টেইন। দীর্ঘদিন পর এবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) এ প্রোটিয়া পেস স্তম্ভ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে খেলছিলেন। কিন্তু রবিবার চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলার পর থেকেই পুরনো সমস্যাটা নতুন করে অনুভব করতে শুরু করেন স্টেইন। এরপরই ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা (সিএসএ) থেকে তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। আসন্ন বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বোলিং আক্রমণে অন্যতম শক্তি স্টেইন। এ কারণেই তাকে নিয়ে কোন ঝুঁকি নিতে চায়নি সিএসএ। প্রোটিয়া দলের প্রধান চিকিৎসক মোহাম্মদ মুসাজি জানিয়েছেন, ডান কাঁধে প্রদাহের জন্য ফিরিয়ে আনা হয়েছে স্টেইনকে দেশে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিতে। তিনি আশা ব্যক্ত করেছেন বিশ্বকাপের আগেই পুরোপুরি ফিটনেস ফিরে পাবেন স্টেইন।

গত বছর অক্টোবরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরেছিলেন স্টেইন। এর আগে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি ও পায়ের সমস্যায় দীর্ঘ বিশ্রাম পেয়েছিলেন তিনি। ফেরার পর অবশ্য প্রায় নিয়মিতই দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলেছেন। বেশ ভাল অবস্থানেও আছেন। এ কারণে আসন্ন বিশ্বকাপে তার অন্তর্ভুক্তি প্রোটিয়া বোলিং আক্রমণকে অনেকখানি সমৃদ্ধ করে তোলে। শারীরিকভাবে বেশ ভাল থাকার কারণে এ বছর আইপিএলেও যোগ দিয়েছেন স্টেইন। কিন্তু সেটা তেমন সুখকর হলো না। রবিবার চেন্নাইয়ের বিপক্ষে খেলতে নেমে কাঁধের পুরনো সমস্যাটায় আক্রান্ত হয়েছেন। মূলত প্রদাহ আর ব্যথায় ভুগতে থাকেন ম্যাচের পর। সে কারণে আর ঝুঁকি না নিয়ে তিনি দক্ষিণ আফ্রিকায় ফিরে গেছেন। টেস্ট ক্রিকেটে প্রোটিয়াদের পক্ষে শীর্ষ উইকেট শিকারি স্টেইন। তিনি দেশে ফিরে কাঁধের বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের সঙ্গে পরামর্শ করবেন। এ বিষয়ে মুসাজি বলেন, ডেল দ্বিতীয় ম্যাচ খেলার পর থেকেই অস্বস্তিবোধ করতে থাকেন। সবকিছু পর্যালোচনা ও পর্যবেক্ষণে নিশ্চিত হওয়া গেছে তার ডান কাঁধে প্রদাহ রয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্বকাপ অনুশীলন ক্যাম্প শুরু হবে ১২ মে। আর ইংল্যান্ডের উদ্দেশে বিশ্বকাপ স্কোয়াড দেশ ছাড়বে ১৯ মে। এর আগেই স্টেইনকে পুরোপুরি ফিট করে তোলার প্রক্রিয়া শুরু করবে সিএসএ। আর সে জন্য সর্বোচ্চ গুরুত্বই পাবেন স্টেইন। এ বিষয়ে মুসাজি বলেন, আগামী ১৯ মে দল ইংল্যান্ড যাবে। সেটারও অনেক পরে আমাদের বিশ্বকাপ শুরু। তাই হাতে যথেষ্ট সময় আছে। তার এই কাঁধের সমস্যাটা পুরনো। আশা করছি এর আগেই স্টেইন পুরোপুরি ফিটনেস ফিরে পাবে। আমরা তার পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার জন্য যা যা করণীয় তা দ্রুতই শুরু করে দেব। দক্ষিণ আফ্রিকার পেস বোলিং বিভাগে আরও কয়েকটি ইনজুরি সমস্যা রয়েছে। লুঙ্গি এনগিদি হাঁটুর ইনজুরির কারণে চার সপ্তাহের পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার মধ্যে আছেন। আনরিখ নর্টজে তার বোলিং করা হাতের কাঁধে ইনজুরিতে পড়েছেন। তার ৬ সপ্তাহ বিশ্রাম ও রিহ্যাব চলছে। আন্দিলে ফেলুকোয়াও ডান পায়ের ইনজুরিতে পড়েন এবং সে কারণে চলমান সিএসএ টি২০ চ্যালেঞ্জে খেলতে পারছেন না। এছাড়া পিঠের নিচের দিকে ব্যথার কারণে প্রায় এক মাস ক্রিকেট থেকে দূরে ছিলেন তাবরেজ শামসি। এখন ফিজিওথেরাপি নিয়ে রিহ্যাব চালিয়ে যাচ্ছেন। ১২ মে তার পুরো ফিট হয়ে ওঠার কথা। আর অভিজ্ঞ মিডলঅর্ডার জেপি ডুমিনি দীর্ঘ সময় ধরে কাঁধের ইনজুরির জন্য অস্ত্রোপচার করাতে হয়েছিল। আবার খেলতে শুরু করলেও চলমান চ্যালেঞ্জ কাপ টি২০ খেলছেন না। ডুমিনিও ফিজিওথেরাপি নিচ্ছেন।