২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সন্দেহভাজনের তালিকায় ভুল ছবি, ক্ষমা চাইল শ্রীলঙ্কা পুলিশ

সন্দেহভাজনের তালিকায় ভুল ছবি, ক্ষমা চাইল শ্রীলঙ্কা পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক ॥ ইস্টার সানডের পরবের দিন শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ হামলায় জড়িত সন্দেহভাজনদের তালিকায় ভুলে যুক্তরাষ্ট্রের এক নারীর ছবি প্রকাশ করে ফেলায় ‘ক্ষমা চেয়েছে’ শ্রীলঙ্কা পুলিশ।

লেখক ও সমাজকর্মী ওই নারীর নাম আমারা মজিদ। তিনি ‘দ্য ফরেইনারস’ নামে একটি বই লিখেছেন, যেটিতে ইসলাম সম্পর্কে চলমান ভ্রান্ত ধারণার বিরুদ্ধে তিনি কথা বলেছেন।

বিবিসি জানায়, শ্রীলঙ্কা পুলিশ বৃহস্পতিবার হামলা পরিকল্পনায় জড়িত সন্দেহভাজন ছয় ব্যক্তির ছবি ও নাম প্রকাশ করে।

সেখানে নিজের ছবি দেখে ওই দিনই এক টুইটে আমারা বলেন, “আজ সকালে শ্রীলঙ্কা সরকার ভুলে আমাকে ইস্টার হামলাকারী আইএসআইএসর একজন বলে চিহ্নিত করেছে।”

সন্দেহভাজনদের তালিকায় আমারার ছবি দিয়ে তার নাম ফাতিমা খাদিজা বলা হয় বলে জানায় বিবিসি।

বাল্টিমোরে জন্ম নেওয়া আমারার বাবা-মা শ্রীলঙ্কার নাগরিক।

আমারা লেখেন, “এটা নিশ্চিতভাবেই ভুল এবং সত্যি বলতে, হামলা নিয়ে নজরদারিতে এরই মধ্যে আমাদের সম্প্রদায়ের লোকজন নানা ভাবে নিপীড়নের শিকার। আর ভুল অভিযোগ বা তদন্তের প্রয়োজন আমার নেই।

“দয়া করে আমাকে ভয়াবহ ওই হামলার সঙ্গে জড়ানো এবং আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলা বন্ধ করুন।”

পরে এক টুইটে তিনি জানান, ভুলে তার ছবি ব্যবহার করায় শ্রীলঙ্কা পুলিশ ক্ষমা চেয়েছে।

বিবিসি জানায়, আমারা ১৬ বছর বয়সে অনলাইনে ‘হিজাব প্রোজেক্ট’ নামে একটি আন্দোলন শুরু খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন।

ওই আন্দোলনে তিনি সব ধর্মের নারীদের হিজাব পরার চেষ্টা করার এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ সম্পর্কে নিজের অভিজ্ঞতা জানানোর আহ্বান জানিয়েছিলেন।

তিনি ২০১৫ সালে বিবিসির ১০০ অনুপ্রেরণাদায়ী এবং ব্যাতিক্রমী নারীর তালিকায় স্থান পেয়েছিলেন।

এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সময় তিনি বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে এক খোলা চিঠিতে তার বিরুদ্ধে ‘আমেরিকার জনগণের আতঙ্ক ও পাগলামীকে পুঁজি করে রাজনীতি করার’ অভিযোগ তুলেছিলেন।