২৭ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

’৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উচ্চ আয়ের দেশে পরিণত হবে ॥ পরিকল্পনা মন্ত্রী

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ ২০৩০ সালের মধ্যে উচ্চ আয়ের ন্যূনতম পর্যায়ে এবং ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ উচ্চ আয়ের দেশে পরিণত হবে জানিয়েছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান।

শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিরাজুল ইসলাম লেকচার থিয়েটার হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন। বাংলাদেশ অর্থনীতি শিক্ষক সমিতির ১০ম দ্বিবার্ষিক জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে ‘বাংলাদেশে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের কৌশল’ শিরোনামে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। অধ্যাপক ড. এম এ জলিলের সভাপতিত্বে সেমিনারে বক্তব্য রাখেন ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্সের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জামান আহমদ, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল বারাকাত, সহ-সভাপতি জনাব এ জেড এম সালেহসহ প্রমুখ।

২০৪০ সালের মধ্যে মাথাপিছু আয় চার হাজার ডলার ছাড়াবে বলে উল্লেখ করে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, এই পরিবর্তনের নায়কদেরকে আমাদের সম্মান জানাতে হবে। তারা হলেন- শ্রমিক, কৃষক, মজুর। প্রায় সোয়া কোটি বাঙালী বিদেশে কাজ করে রেমিটেন্স পাঠাচ্ছেন। এর মধ্যে এক কোটির বেশি হবে নিছক হাতে পায়ে পরিশ্রম করা মানুষ। এছাড়া রয়েছে গার্মেন্টস কর্মী। তারাই হবে এই পরিবর্তনের নায়ক।

তিনি আরও বলেন, আমরা ইতিহাসের শিকার। এই বঙ্গভূমি প্রচ- শোষণ ও ইতিহাসের শিকার ছিল। এখান থেকে সম্পদ হাজার বছর একটানা বাইরে গেছে। ফলে আমরা দরিদ্র হয়েছি। কিন্তু এ নিয়ে ক্ষোভ হতাশায় নিমজ্জিত হলে চলবে না। এটাকে স্বীকার করে, ইতিহাসকে সম্মান করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

অধ্যাপক ড. আবুল বারকাত বলেন, নিজের টাকায় পদ্মা সেতু করার কথা বলা হলে অনেকে এটিকে ‘অলীক কল্পনা’ বলে হেয় করেছিল। তারা বলেছিল, বিশ^ ব্যাংকের সাহায্য ছাড়া এটি হবে না। মূল কথা হলো, উন্নয়নের জন্য আমাদের যা কিছু প্রয়োজন তা আমাদের আছে। উন্নয়নের জন্য তিনটি বড় বিষয় গুরুত্বপূর্ণ। এগুলো হচ্ছে মানবসম্পদ, ভৌতসম্পদ ও প্রাকৃতিক সম্পদ। আর গুরুত্বপূর্ণ এ তিনটি সম্পদই পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীন। এই তিনটি সম্পদ যদি সঠিকভাবে ব্যবহার করা যায় তাহলে আমরা আরও দ্রুত এগিয়ে যাব।