২৭ মে ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নৈতিক দায় থেকেই বিএনপির সংসদে আসা উচিত ॥ হানিফ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, নৈতিক দায় থেকেই বিএনপির সংসদে আসা উচিত। বিএনপি থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের উচিত জনগণের রায়ের প্রতি সম্মান দেখিয়ে সংসদে আসা। সংসদে না গেলে জনগণ আর কোন দিন তাদের ভোট দেবে না।

শুক্রবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ৪ জন মহিলা এমপির সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। হানিফ বলেন, বিএনপি শপথ নেবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু যারা নির্বাচিত হয়েছেন তাদের শপথ নেয়া উচিত। বিএনপির বাকিরা ৩০ এপ্রিলের মধ্যেই শপথ নিয়ে জনরায়কে সম্মান করবেন বলে আশা করছি।

তিনি বলেন, বিএনপির মহাসচিব ফখরুল ইসলাম কথায় কথায় গণতন্ত্রের কথা বলেন, অথচ সংসদে আসতে চান না। শপথ না নিলে মানুষ আর ভোট দেবে না। এতো অপকর্ম করলে মানুষ তাদের ভোট দেবে কেন? তাদের অগ্নিসন্ত্রাস, পুড়িয়ে শত শত মানুষ হত্যার ঘৃণ্য রাজনীতি দেশের জনগণ ভোলেনি, আগামীতেও ভুলবে না।

শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ধর্মের নাম করে উগ্রবাদ সহ্য করা হবে না। সন্ত্রাস এবং জঙ্গীবাদে যারা জড়িত তারা মানবতার শত্রু, সমাজের শত্রু, দেশের শত্রু। এদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

খালেদা জিয়ার শাসনামলে শেখ হাসিনার ওপর হামলা হওয়ার কথা স্মরণ করে মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, এই দেশের প্রথম সন্ত্রাস শুরু হয়েছে ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে। এটি সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ছিল। জাতির পিতাকে হত্যার মাধ্যমে এদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করার চেষ্টা করা হয়েছিল। আর খালেদা জিয়া যতবার ক্ষমতায় এসেছে, প্রত্যেকবার হামলা হয়েছে শেখ হাসিনার ওপর, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ওপর।

ঢাকা মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেরা বেগমের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাখেন ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাফিয়া খাতুন, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম ক্রিক প্রমুখ। অনুষ্ঠানে মহিলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা, নার্গিস রহমান, শবনম শিলা ও জিন্নাতুল বাকিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।