২৩ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গেতাফেকে হারিয়ে জয়ে ফিরল বার্সা

গেতাফেকে হারিয়ে জয়ে ফিরল বার্সা

অনলাইন ডেস্ক ॥ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে ছিটকে পড়ার হতাশা থাকলেও তা কাঁবু করতে পারেনি বার্সেলোনাকে। লা লিগায় গেতাফেকে হারিয়ে জয়ের পথে ফিরেছে আগেই প্রতিযোগিতাটির শিরোপা নিশ্চিত করা এরনেস্তো ভালভেরদের দল।

কাম্প নউয়ে রবিবার স্থানীয় সময় বিকালে ২-০ গোলে জিতেছে কাতালান ক্লাবটি। জানুয়ারিতে লিগের প্রথম পর্বে লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেসের গোলে গেতাফেকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছিল বার্সেলোনা।

টানা দুই হারের পর জয়ের দেখা পেল কাতালান ক্লাবটি। লিগে টানা ২৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর গত সপ্তাহে সেল্তা ভিগোর মাঠে ২-০ গোলে হেরেছিল বার্সেলোনা। তিন দিন পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সেমি-ফাইনালে ফিরতি লেগে লিভারপুলের মাঠে ৪-০ গোলে হেরে ছিটকে যায় মেসি-সুয়ারেসরা।

গেতাফের বিপক্ষে বল দখলে বার্সেলোনা একচেটিয়া আধিপত্য করলেও শুরুতে আক্রমণে তেমন একটা সুবিধা করতে পারছিল না তারা। উল্টো দ্বাদশ মিনিটেই গোল খেতে বসেছিল টানা দুবারের চ্যাম্পিয়নরা। তবে স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড হোর্হে মোলিনা বার্সেলোনার দ্বিতীয় পছন্দের গোলরক্ষক ইয়াসপের সিলেসেনকে একা পেয়েও ক্রসবারের উপর দিয়ে উড়িয়ে মারলে বেঁচে যায় স্বাগতিকরা।

২৭তম মিনিটে মোলিনা জালে বল পাঠালে উল্লাসে মাতে গেতাফে। তবে ভিআরের সাহায্য নিয়ে অফসাইডের বাঁশি বাজান রেফারি।

ধীরে ধীরে গুছিয়ে ওঠা বার্সেলোনা ৩৯তম মিনিটে কাঙ্ক্ষিত গোল পেয়ে যায়। ডান দিক থেকে মেসির ফ্রি-কিকে আলতো করে মাথা ছুঁইয়েছিলেন জেরার্দ পিকে, ঝাঁপিয়ে রুখে দেন গোলরক্ষক। আলগা বল ফাঁকায় পেয়ে জালে ঠেলে দেন আর্তুরো ভিদাল।

৫৮তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করার দারুণ সুযোগ পেয়েছিল বার্সেলোনা। কিন্তু ফিলিপে কৌতিনিয়োর পাস পেয়ে কয়েক গজ দূর থেকে গোলরক্ষক বরাবর শট নেন মালকম। ৮৭তম মিনিটে গোলরক্ষককে একা পেয়ে মেসিও তার বরাবর শট নেন। পাল্টা আক্রমণে মোলিনার হেড পোস্টে বাধা পেলে সমতায় ফেরা হয়নি গেতাফের।

দুই মিনিট পর গেতাফের আত্মঘাতী গোলে জয় নিশ্চিত হয়ে যায় বার্সেলোনার। ডিফেন্ডারদের মধ্যে দিয়ে মেসি ডি-বক্সে ঢুকতে গেলে বল একজনের পায়ে লেগে চলে যায় ডানে কার্লেস আলেনার পায়ে। আর্জেন্টাইন তারকার উদ্দেশে ফিরতি পাস বাড়ান স্প্যানিশ মিডফিল্ডার আলেনা। তা ঠেকাতে গিয়ে উল্টো নিজেদের জালে ঠেলে দেন টোগোর ডিফেন্ডার জেন দাকোনাম।

৩৭ ম্যাচে ২৬ জয় ও আট ড্রয়ে চ্যাম্পিয়নদের পয়েন্ট ৮৬।

একই সময়ে হওয়া আরেক ম্যাচে সেভিয়ার সঙ্গে ঘরের মাঠে ১-১ গোলে ড্র করা আতলেতিকো মাদ্রিদ ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে দ্বিতীয় স্থানে।

আর রিয়াল সোসিয়েদাদের মাঠে ৩-১ গোলে হারা রিয়াল মাদ্রিদ ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিন নম্বরে।